এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > শহর কলকাতায় জলাশয় বোঝানো হলে এবার সরাসরি পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা নতুন মেয়রের

শহর কলকাতায় জলাশয় বোঝানো হলে এবার সরাসরি পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা নতুন মেয়রের

দায়িত্ব নিয়েই এবার একের পর এক অভিনব পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করতে শুরু করেছেন কলকাতা পৌরসভার নবনির্বাচিত মহানাগরিক ফিরহাদ হাকিম। এবার পুর এলাকায় জলাশয় বোঝানো নিয়ে কড়া পদক্ষেপের কথা শোনা গেল তার গলায়। সূত্রের খবর, গতকাল পুর ভবনে কলকাতা পৌরসভার সবকটি বিভাগের কন্ট্রোলিং অফিসারকে নিয়ে একটি বৈঠক করেন ফিরহাদ হাকিম। আর এই বৈঠকেই উপস্থিত প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট ইউনিট বিভাগের ডিজি সুব্রত শীলের কাছ থেকে কলকাতার সমস্ত জলসায়গুলির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চান তিনি।

আর এরপরেই সেই সুব্রত বাবুর কাছ থেকে শহরের জলাশয়গুলির অবস্থা শুনে মেয়র বুঝতে পারেন যে অবিলম্বে এই জলাশয় গুলিকে রক্ষা করতে না পারলে শহরকে দূষণের হাত থেকে রক্ষা করা যাবে না। আর তখনই মেয়র বলেন, “যে এলাকায় এই জলাশয় বোঝানো হচ্ছে, সেই থানার ওসি তা জানতে পারছে না এটা হতে পারে না। তাই কোনো এলাকার পুকুর বোজানো হলে সেখানকার থানার ওসির বিরুদ্ধে কলকাতা পুলিশ কমিশনারের কাছে লিখিত নালিশ জানানো হবে।”

বিশেষজ্ঞদের মতে, এ এক অভিনব পদক্ষেপ নিলেন ফিরহাদ হাকিম। কেননা এতদিন রাজনৈতিক জটিলতার কারণে এই পুকুর বোঝানোতে পুলিশ হস্তক্ষেপ না করলেও এবার সেই পুলিশের বিরুদ্ধেই মামলা করা হবে- এহেন হুঁশিয়ারি দেওয়ায় পুকুর বোজানো আটকাতে পথে নামবে প্রশাসন। কারণ সকলেই নিজের ভালো চায়।

প্রশাসন সূত্রের খবর, বর্তমানে এই কলকাতা শহরে প্রায় তিন হাজারের মতো জলাশয় রয়েছে। আর যার মধ্যে বহু জলাশয় বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে তা দাঁড়িয়েছে দেড় থেকে দু’হাজারে। আর তাই এবার সেই জলাশয় বোঝানো আটকাতে এবার কড়া সিদ্ধান্ত নিলেন নতুন মেয়র।

তবে শুধু জলাশয় বোঝানো আটকানোই নয়, এদিনের বৈঠকে কলকাতার কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারি সংস্থার যে ফাঁকা জমিগুলো রয়েছে সেখানে বনসৃজন করার ব্যাপারেও একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি রাস্তা ও পানীয় জলের সমস্যা নিয়েও এদিন পুরসভার কর্তা ব্যক্তিদের সঙ্গে বিস্তর আলোচনা করেন ফিরহাদ হাকিম। পর্যাপ্ত জল থাকলেও কেন এখনো তা পুরসভার সমস্ত নাগরিকের কাছে পৌঁছাচ্ছে না তা নিয়ে এদিন আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আর এরপরই ফিরহাদ হাকিম বলেন, “পানীয় জল সংক্রান্ত বিষয়ে আমরা একটা বিস্তারিত পরিকল্পনা করেছি। এটা কার্যকর করতে কিছুটা সময় লাগবে।” অন্যদিকে কলকাতার যাদবপুর- টালিগঞ্জ এবং আনন্দপুরে ডায়েরিয়ার প্রকোপ বাড়ার কারণেও এদিন চিন্তিত মেয়র এই ব্যাপারটি দেখভালের জন্য জল সরবরাহ ও স্বাস্থ্য বিভাগকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশও দেন। সব মিলিয়ে দায়িত্ব নিয়েই এবার কলকাতা পৌরসভাকে সুন্দর করতে একাধিক পদক্ষেপ ফিরহাদ হাকিমের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!