এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > খোদ কলকাতার বুকে পুরভোটের উপনির্বাচনেও শাসকদলের বিরুদ্ধে বাইক মিছিল নিয়ে ভয়ের পরিবেশ তৈরির অভিযোগ

খোদ কলকাতার বুকে পুরভোটের উপনির্বাচনেও শাসকদলের বিরুদ্ধে বাইক মিছিল নিয়ে ভয়ের পরিবেশ তৈরির অভিযোগ

রাজ্যে প্রায় প্রতিটি নির্বাচনেই শাসকদলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ তোলে বিরোধীরা। কিন্তু গতকাল কলকাতা পৌরসভার 117 নম্বর ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনের বিরোধীদের সেই অভিযোগ যেন পাত্তাই পেল না।

সূত্রের খবর, গতকাল সকাল 7 টা থেকে বেলা 3 টে পর্যন্ত 117 নম্বর ওয়ার্ডের সাতটি ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের 21 টি বুথে এই ভোটগ্রহণপর্ব সম্পন্ন হয়। যেখানে ভোটার ছিলেন প্রায় 18 হাজার 815 জন। প্রথম দিকে এই মেঘলা আকাশ ও ছিটেফোঁটা বৃষ্টির কারণে বুথ গুলিতে ভোটারের সংখ্যা প্রায় ছিল না বললেই চলে। কিন্তু বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ীর কাজ শেষ করে ভোটকেন্দ্রে ভিড় বাড়াতে শুরু করেন ভোটাররা।

বেলা 1 টা নাগাদ সাহাপুর মথুরানাথ হাইস্কুল, জ্যোতিষ রায় রোডের সাহাপুর গার্লস হাইস্কুল, ক্যানাল রোডের শিবকালী প্রাথমিক বিদ্যাপীঠ এবং বাল হিন্দি বিদ্যাপীঠের বুথ গুলিতে শান্তিপূর্ণভাবেই ভোটগ্রহণের চিত্র চোখে পড়ল। তবে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ হলেও বেলা 12 টা নাগাদ শাসক দলের কর্মী-সমর্থকদের দ্বারা একটি বাইক মিছিল বিভিন্ন বুথের সামনে দিয়ে যেতেই ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগ তোলেন বিরোধীদলের প্রার্থীরা।

জানা গেছে, এই 117 নম্বর ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে প্রায় 64 শতাংশ ভোট পড়েছে। এদিন এই ভোটগ্রহণের সময় শাসক দলের কর্মী-সমর্থকদের বাইক নিয়ে দাপাদাপি প্রসঙ্গে বিজেপির প্রার্থী সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “বিভিন্ন বুথের সামনে দিয়ে শাসক দলের কর্মী-সমর্থকদের বাইক মিছিলে মানুষ সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছেন।”

অন্যদিকে শাসকদলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙ্গুল তুললেও মোটামুটিভাবে এই 117 নম্বর ওয়ার্ডের উপনির্বাচন যে শান্তিপূর্ণ ভাবেই হয়েছে এদিন তা কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন বামপ্রার্থী অমিতাভ কর্মকার। তবে বিজেপির তরফ থেকে এই উপনির্বাচনে 75 শতাংশ ভোট পড়ার আশা করা হলেও শাসক দলের কর্মী-সমর্থকদের দাপাদাপির কারণেই বহু মানুষ ভোট দিতে আসতে পারেনি, এমনকি ফলস ভোট পড়েছে বলে অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিকে বিরোধীদের এই সমস্ত অভিযোগকে অস্বীকার করেছেন তৃণমূল প্রার্থী অমিত সিং। এদিন তিনি বলেন, “সম্পূর্ণভাবে শান্তিপূর্ণ ভোট হয়েছে। ফলস ভোট দিলে ভোটের হার এত কম থাকে কিভাবে? আসলে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ওরা যা খুশি অভিযোগ করতে শুরু করেছে।” তবে শাসক-বিরোধীর এই তরজায় আগামী 19 শে ডিসেম্বর এই কলকাতা পৌরসভার 117 নম্বর ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে ফলাফলে ঠিক কে শেষ হাসি হাসে এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!