এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপি তৃণমূলের এই অরাজকতার অবসান না ঘটানো পর্যন্ত শান্ত হয়ে বসবে না।” কৈলাস বিজয়বর্গীয় – জেনে নিন

বিজেপি তৃণমূলের এই অরাজকতার অবসান না ঘটানো পর্যন্ত শান্ত হয়ে বসবে না।” কৈলাস বিজয়বর্গীয় – জেনে নিন

2019 এর লোকসভা ভোটের পর থেকেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য। একের পর এক রাজনৈতিক হত্যালীলা চলতে থাকে যা এখনো বর্তমান। আর এই রাজনৈতিক হত্যার পরিপ্রেক্ষিতে প্রসাশক কোন রকম ব্যবস্থা নিতে পারছেন না এই দাবিতে আজ প্রতিবাদ জানান বিজেপি কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাশ বিজয় বর্গীয়।

লোকসভা ভোটের পর উত্তর 24 পরগনার সন্দেশখালিতে রাজনৈতিক উত্তেজনা প্রবল ভাবে ছড়ায়। দুই দলের বিরোধিতায় খুন হন দুই বিজেপি কর্মী প্রদীপ মণ্ডল ও সুকান্ত মন্ডল। এদিন তাদের বাড়িতে দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয় সান্ত্বনা জানাতে তাদের বাড়ি যান। সাথে মুকুল রায়ও ছিলেন বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে শ্যামবাজার পাঁচ মাথার মোড়ে নিহত এই দুই বিজেপি কর্মীর হত্যাকাণ্ড নিয়ে বসে ধরনা মঞ্চ। সেই ধর্না মঞ্চে বিজেপির অনেক নেতাই উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী, প্রদীপ মণ্ডল ও সুকান্ত মন্ডল এর বাড়ির লোকজন বিজেপি নেতাদের দেখামাত্রই কান্নায় ভেঙে পড়েন। বাড়ির দুই সন্তানের হত্যার বিচার চান তাঁরা। পুলিশ এ ব্যাপারে যথেষ্ট নিষ্ক্রিয় সেকথাও জানাতে ভোলেন না তাঁরা। দুষ্কৃতকারীরা এলাকায় প্রথম দিন থেকে ঘুরছে বলে জানান তাঁরা। 3 মাস পেরিয়ে গেলেও তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন নিহতের বাড়ির লোকজন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এই ঘটনায় কৈলাস বিজয়বর্গীয় তৃণমূল রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, “প্রদীপ মণ্ডল ও সুকান্ত মণ্ডল নিহত হওয়ার পর তিন মাস কেটে গিয়েছে। এখনো ওই হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত শেখ শাহজাহানের গুন্ডাবাহিনী ঘুরে বেড়াচ্ছে! এই ঘটনা মমতা বন্দোপাধ্যায়ের জমানায় সন্ত্রাস ও তোষণের জ্বলন্ত নমুনা! কিন্তু বিজেপি এই অরাজকতার অবসান না ঘটানো পর্যন্ত শান্ত হয়ে বসবে না।”

সন্দেশখালি হত্যাকাণ্ডে বিজেপি দাবি জানায়, শাহজাহান ও তার দলবল তৃণমূল অধ্যুষিত দুষ্কৃত বাহিনী। তাঁরাই এই হত্যাকাণ্ড ঘটায়। পুলিশ সম্পূর্ণভাবে নিষ্ক্রিয় হয়ে আছে বলে অভিযোগ। পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার বিরুদ্ধে এবার আন্দোলনে নামবে বলে জানায় তাঁরা। এই ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি অনেক আগেই জানানো হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!