এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > নিজেদের রাজ্য সামলাতে ব্যাস্ত কৈলাশ-সুরেশ – বঙ্গ-বিজেপিতে ক্ষমতা বদলের স্পষ্ট ইঙ্গিত

নিজেদের রাজ্য সামলাতে ব্যাস্ত কৈলাশ-সুরেশ – বঙ্গ-বিজেপিতে ক্ষমতা বদলের স্পষ্ট ইঙ্গিত

কথায় আছে “আপনি বাচলে বাপের নাম” আর তাই দেশের পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশ হতে না হতেই বঙ্গ বিজেপির ক্ষমতায় হতে চলেছে বড়সড় রদবদল। কিন্তু দেশের পাঁচ রাজ্যে ভোট হলেও তো বাংলায় কোনোও ভোট নেই, তাহলে কেন এই রদবদল!

সূত্রের খবর, বাংলায় বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীর নিজের রাজ্য মধ্যপ্রদেশে ভোট রয়েছে। এমনচী নিজের রাজ্য থেকে লড়ার কথাও রয়েছে এই বিজেপি নেতার। ফলে নিজের গড় সামলে তিনি কতটা বাংলায় সময় দিতে পারবেন তা নিয়ে ইতিমধ্যেই উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। তবে শুধু কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ই নন, একই অবস্থা বাংলায় বিজেপির দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত সহনেতা সুরেশ পূজারিরও। কেননা, কিছুদিনের মধ্যেই তাঁর নিজের রাজ্য ওড়িশা বিধানসভায় ভোট রয়েছে। এছাড়াও লোকসভা ভোটের চাপ রয়েছে। ফলে তিনিও কতটা বাংলায় সময় দিতে পারবেন তা নিয়ে আশঙ্কা রয়েই গেছে।

পাশাপাশি আগামী লোকসভায় এই বাংলা থেকে বেশি আসন টানতে উদ্যোগী হয়েছেন কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী- অমিত শাহরা। ফলে বাংলাকেও তো অভিভাবকহীন রাখা যায় না। তাই এই বিষয়টিকে চিন্তা করেই রাজ্য বিজেপির সহ সম্পাদক পদে দুদিন আগেই নিয়োগ করা হয়েছে অরবিন্দ মেননকে। আর এই অরবিন্দ মেননকে বাংলায় নতুন দ্বায়িত্ব দেওয়া নিয়ে নতুন গোষ্টীদ্বন্দ্বের আঁচ পাচ্ছেন অনেক বিজেপি নেতা। কেননা, এই অরবিন্দ মেনন দীর্ঘ 14 বছর ধরে মধ্যপ্রদেশের বিজেপির সাধারন সম্পাদক পদে ছিলেন। আর তখনই সেই মধ্যপ্রদেশেরই মন্ত্রী ছিলেন কৈলাশ বিজয়বর্গীও। বিভিন্ন ইস্যুতে এই দুই নেতার মধ্যে বিবাদ তৈরি হলে এই অরবিন্দ মেনন শিবরাজ চৌহানের দিকে ঝুঁকে যায়। আর কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এবং শিবরাজ সিং চৌহানের দ্বন্দ্ব বিজেপির সকলেরই জানা। এদিকে এহেন একটা পরিস্থিতিতে বাংলায় অরবিন্দ মেননকে দ্বায়িত্ব দেওয়ায় কৈলাশ বিজয়বর্গীয় ঘনিষ্ট বঙ্গ বিজেপি নেতার সিঁদুরে মেঘ দেখতে শুরু করেছেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কেননা, কৈলাশ বিজয়বর্গীর হাত ধরে এতদিন বঙ্গ বিজেপির বহু নেতা গুরুত্বপূর্ন পদে রয়েছেন। অন্যদিকেবিজেপির অন্দরে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে যে বাংলার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের অনুগামীরা নাকি অতটা পাত্তা পেতেন না কৈলাশ বিজয়বর্গীর কাছে। ফলে এখন সেই কৈলাশ বিরুদ্ধ অরবিন্দ মেনন আসায় সেই দিলীপ ঘোষ অনুগামীরা মেননের দিকেই ঝোঁকে কি না সেদিকেই তাকিয়ে সকলে। অন্যদিকে অরবিন্দ মেনন বাংলার সংগঠন ঢেলে সাজাতে কৈলাশের থেকেও দক্ষ ভূমিকা পালন করেন কি না তা নিয়ে কিছুটা চিন্তায় রয়েছে বাংলার পদ্ম শিবির।

Top
error: Content is protected !!