এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > খড়গপুরে পছন্দের প্রার্থী না পেলে বসে যাবে বিজেপির একাংশ? সুযোগ নিয়ে বাজিমাত তৃণমূলের?

খড়গপুরে পছন্দের প্রার্থী না পেলে বসে যাবে বিজেপির একাংশ? সুযোগ নিয়ে বাজিমাত তৃণমূলের?

 

গত 2016 সালে খড়গপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জয়লাভ করে সারা রাজ্যে বিজেপির হাওয়া তুলতে সক্ষম হয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ। খড়্গপুরের বিধায়ক হয়ে মেদিনীপুর ধীরে ধীরে পদ্মের চাষ করতে শুরু করেছিলেন তিনি। যার ফসল হিসেবে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রে জয়যুক্ত হন খড়্গপুরের ভূতপূর্ব বিধায়ক দিলীপ ঘোষ।

বর্তমানে তিনি মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ। আর দীলিপবাবুর ছেড়ে যাওয়া খড়গপুর বিধানসভা আসনে আগামী 25 নভেম্বর উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তৃণমূলের লক্ষ, এই আসনটিকে নিজেদের দখলে আনা। অন্যদিকে বিজেপির টার্গেট, 2016 সালের মত এই কেন্দ্রটি স্বপক্ষে রাখা। তবে দিলীপ ঘোষের ছেড়ে যাওয়া আসনে বিজেপির প্রার্থী কে হবে, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে জল্পনা ছড়িয়েছে।

এখনও পর্যন্ত বিজেপি তাদের প্রার্থী ঘোষণা করতে পারেনি। আর এই সুযোগে তৃণমূল খড়গপুর বিধানসভা উপনির্বাচনের প্রার্থী হিসেবে প্রদীপ সরকারকে দাঁড় করিয়ে নিজেদের প্রচার শুরু করে দিয়েছে। তবে তৃণমূল এই কেন্দ্রে জয় পাবার জন্য প্রচার চালিয়ে গেলেও, দলীয় স্তরে প্রার্থী নিয়ে এখন প্রবল বিপাকে পড়েছে গেরুয়া শিবির।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, বিজেপির অনেক নেতাকর্মীই নাকি ওপরতলায় জানিয়ে দিয়েছেন যে, পছন্দের প্রার্থী না হলে তারা দলীয় প্রার্থীর হয়ে প্রচারে নামবেন না। আর বিজেপির এই বিদ্রোহী নেতা-কর্মীদের ভোট এখন নিজেদের বাগে আনতে পাল্টা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করে দিয়েছেন তৃণমূল প্রার্থী বলে বিশ্বস্ত সূত্রে খবর।

এই প্রসঙ্গে খড়গপুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকার বলেন, “প্রার্থী হওয়ার পর বিজেপির অনেক কর্মী আমাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তাদের সঙ্গে আমার যোগাযোগ রয়েছে। আমি ব্যক্তি হিসেবে তাদের ভোট পাব। বিজেপির ভোট আমি ভাঙবই। সেই কাজ শুরু করে দিয়েছি।” একই কথা বলে এই কেন্দ্রে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী মনোভাব পোষণ করতে দেখা গেছে তৃনমূল নেতা তথা খড়গপুর পৌরসভার কাউন্সিলর দেবাশীষ চৌধুরীকে।

তাহলে কি বিজেপির প্রার্থী নিয়ে দলীয় স্তরে অসন্তোষের ফায়দা এখন এই কেন্দ্রে লুটে নেবে তৃণমূল! আর তার ফলেই কি এতদিন ধরে দিলীপ ঘোষের দখলে থাকা এই কেন্দ্র এবার চলে যাবে তৃণমূলের হাতে! এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপি নেতা তুষার মুখোপাধ্যায় বলেন, “বিজেপির ভোট তৃণমূলে যাবে, এটা মানতে পারলাম না। যারা বিজেপির পদ্মফুলে ভোট দেন, যারা বিজেপি দলটা করেন, তারা কোনোভাবেই অন্য দলকে ভোট দেবেন না। আমাদের কেউ কারও সঙ্গে যোগাযোগ করছে কিনা, বলতে পারব না। যদি করে থাকে, তাহলে সেটা তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। কিন্তু দীলিপবাবুর নেতৃত্বে এখানে আমরা লড়াই করব। কে প্রার্থী হচ্ছেন, সেটা বড় কথা নয়। আমরা বলব, প্রার্থীকে জেতানো মানে দিলীপ ঘোষকে জেতানো। এই মানসিকতা নিয়ে ভোট দেওয়ার আবেদন জানাব‌।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তুষারবাবুর এই কথা থেকেই স্পষ্ট যে, দিলীপ ঘোষের ছেড়ে যাওয়া এই কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী নিয়ে কিছুটা হলেও অসন্তোষ রয়েছে। এখন দেখার বিজেপি তাদের প্রার্থী হিসেবে কাকে বাছাই করে এবং তাতে নেতাকর্মীরা আদৌ খুশি হয় কিনা! আর যদি বিজেপির নেতা কর্মীরা তাতে খুশি না হয়, তাহলে শেষ পর্যন্ত সেই ফায়দা লুটতে তৃণমূল কোনো অ্যাডভান্টেজ পায় কিনা, সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!