এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > খড়গপুর বিজেপির থেকে ছিনিয়ে নিতে মস্ত চাল দিচ্ছে তৃণমূল , জেনে নিন

খড়গপুর বিজেপির থেকে ছিনিয়ে নিতে মস্ত চাল দিচ্ছে তৃণমূল , জেনে নিন

Priyo Bandhu Media

 

2016 সালে খড়গপুর বিধানসভা কেন্দ্রের দাঁড়িয়েছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। যেখানে জয়লাভ করে সারা রাজ্যে পদ্ম ফোটাতে সচেষ্ট হয়েছিলেন তিনি। এরপর খড়্গপুরের বিভিন্ন এলাকায় বিজেপির সাংগঠনিক বিস্তারের পাশাপাশি বিভিন্ন জায়গায় জয়লাভ করতে শুরু করে গেরুয়া শিবির।

সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে সেই খড়্গপুরের ভূতপূর্ব বিধায়ক দিলীপ ঘোষ মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে দাঁড়িয়ে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। আর তার ছেড়ে যাওয়া এই খড়গপুর আসনূই এবার পুনর্নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তৃণমূল দিলীপ ঘোষের ছেড়ে যাওয়া এই কেন্দ্রটিকে নিজেদের দখলে আনতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তারা এবার এখানে প্রার্থী করেছে খড়গপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান প্রদীপ সরকারকে। ইতিমধ্যেই বিজেপির কাছ থেকে এই কেন্দ্র নিজেদের দখলে আনতে তৃণমূল জোর প্রচার শুরু করে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, খড়গপুর বিধানসভার দখল করতে অনেক আগে থেকেই ময়দানে নেমে গিয়েছেন তৃণমূলের হেভিওয়েট মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। বারেবারেই খড়্গপুরে বিজেপির দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে সরব হয়ে উন্নয়নমূলক প্রকল্প নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন জয় করতে সচেষ্ট হয়েছেন তিনি। কিন্তু এবার উপনির্বাচনের দামামা বেজে যাওয়ায় দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে নেমে বাজিমাত করতে প্রস্তুত তৃণমূলের একাধিক হেভিওয়েট নেতা।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার মেদিনীপুর শহরে খড়গপুর বিধানসভার 35 টি ওয়ার্ডে বিধায়ক এবং পৌরসভা চেয়ারম্যানদের বিশেষ দায়িত্ব দেওয়া হয়। এদিনের এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জেলা তৃণমূলের সভাপতি অজিত মাইতি, বিধায়ক দিনেন রায়, কার্যকরী সভাপতি নির্মল ঘোষ, সাংসদ মানস ভুঁইয়া, জেলা পরিষদের কর্মদক্ষ অমূল্য মাইতি সহ একাধিক জেলা তৃণমূল নেতৃত্বরা। আর এই বৈঠকেই হেভিওয়েট তৃণমূল নেতারা খড়গপুর পৌরসভায় যাতে দল বিপুল পরিমাণে লিড পায়, তার জন্য দলের নেতৃত্বদের নির্দেশ দেন।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, এদিনের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, খড়্গপুরের দুটি করে ওয়ার্ডে একজন করে বিধায়ক এবং জেলা নেতাকে দায়িত্ব দেওয়া হবে। যারা সেখানে জণসংযোগের পাশাপাশি মানুষের অভাব-অভিযোগের কথা শুনবেন। এদিকে খড়গপুর বিধানসভা উপনির্বাচনে প্রদীপ সরকারকে জয়যুক্ত করার জন্য পৌরসভায় লিড পেতে দলের তরফে এই নির্দেশ দেওয়ার পাশাপাশি ভোটার লিস্ট তৈরিতেও জোর দেওয়া হয়েছে।

এদিন এই বৈঠক প্রসঙ্গে জেলা তৃণমূলের সভাপতি অজিত মাইতি বলেন, “তিন দিনের মধ্যে ব্লক নেতৃত্বকে ভোটার লিস্ট সংশোধন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এমনিতেই আমাদের জেলায় সব বুথেই কমিটি রয়েছে। তার মধ্যে তিনজন সক্রিয় কর্মীর তালিকা ব্লক নেতৃত্বকে দিতে বলা হয়েছে। গোটা জেলার বুথস্তরের সক্রিয় কর্মীর তালিকা নথিভুক্ত হওয়ার পর আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

এদিন বেশকিছু সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।” বিশেষজ্ঞদের মতে, যেন-তেন প্রকারেণ এবার খড়গপুর বিধানসভা দখল করা তৃণমূলের কাছে চ্যালেঞ্জের ব্যাপার। আর তাই তো সেই নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীকে জয়যুক্ত করতে রীতিমত তৃণমূলের সমস্ত হেভিওয়েট নেতারা আদাজল খেয়ে নেমে পড়েছেন। এদিন সাংগঠনিক বৈঠক থেকে তৃণমূলের খড়গপুর দখলের ভাবনা আরও একবার স্পষ্ট হলো বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে শেষ পর্যন্ত তৃণমূলের এই স্বপ্ন সফল হয় কিনা, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!