এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > কেশিয়ারিতে তৃণমূল নেতা খুনে দলের দিকেই আঙ্গুল মৃতের স্ত্রীর

কেশিয়ারিতে তৃণমূল নেতা খুনে দলের দিকেই আঙ্গুল মৃতের স্ত্রীর

কয়েকদিন আগেই কেশিয়াড়ির ভসরার কাছে রাস্তার ধারে মৃত্যুঞ্জয় সাঁতরা নামে এক তৃণমূল নেতার দেহ উদ্ধার হয়। প্রাথমিক তদন্তের পরই পুলিশ জানিয়েছিল, মৃত্যুঞ্জয়বাবুকে খুন করা হয়ে থাকতে পারে। কেননা তাঁর মাথার পিছনে লোহার রড ও তাঁর মুখে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছিল বলে মৃতদেহের ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে জানা গিয়েছিল। এই ঘটনায় প্রাথমিক ভাবে বিজেপির দিকে আঙ্গুল উঠেছিল। কিন্তু মৃত মৃত্যুঞ্জয় সাঁতরার স্ত্রী যে অভিযোগ করলেন তাতে তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস।
এদিন মৃত মৃত্যুঞ্জয় বাবুর স্ত্রী রুনাদেবী দাবি করেন, বৈঠক চলাকালীন ফোনে আমার স্বামীর সঙ্গে কারও ঝগড়া হয়েছিল বলে শুনেছি। ও আমাকে কিছু বলত না। তবে বিজেপি নয়, আমাদের পার্টির লোকেরা ওকে খুন করেছে। আমি ছোট এই দুই ছেলেকে নিয়ে কীভাবে বাঁচব জানি না। আমার বড় ছেলের কোনও চাকরির ব্যবস্থা করার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর কাছে দাবি জানাচ্ছি। আমার স্বামীকে যারা খুন করেছে তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক।
অন্যদিকে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ত্বের বক্তব্য, এটি পরিকল্পিত রাজনৈতিক খুন। এর সঙ্গে বিজেপি, সিপিএম বা আমাদের দলছুটরাও থাকতে পারে। আমরা চাই না নির্দোষ কেউ শাস্তি পাক। পুলিশ সঠিক তদন্ত করে দেখুক। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেপ্তার না হলেও পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, খুনের তদন্তে আমরা অনেকটা এগিয়েছি। আপাতত প্রাথমিক তদন্তে যেটুকু বোঝা গিয়েছে, অন্যত্র খুন করে ভসরা এলাকায় দেহ ফেলে রাখা হয়েছিল। পরিচিত কেউ যারা মৃত্যুঞ্জয় সাঁতরার গতিবিধি জানত তারাই এই কাজে যুক্ত বলে মনে হচ্ছে।

Top
error: Content is protected !!