এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কেজরিওয়ালের অবস্থান বিক্ষোভ নিয়ে তীব্র ভর্ত্‍সনা দিল্লি হাইকোর্টের

কেজরিওয়ালের অবস্থান বিক্ষোভ নিয়ে তীব্র ভর্ত্‍সনা দিল্লি হাইকোর্টের

দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়াল সহ তাঁর সরকারের অন্য তিন মন্ত্রীর সম্মিলিত ভাবে দিল্লীর লেফটেন্যান্ট গভর্নরের বাড়ির সামনে অবস্থান বিক্ষোভ কে এদিন ধীক্কার জানালো দিল্লী হাইকোর্ট। উল্লেখ্য চলতি মাসের ১১ তারিখ থেকে মন্ত্রী সভার মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল, উপমুখ্যমন্ত্রী মণিশ সিসোদিয়া, স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন এবং মন্ত্রিসভার সদস্য গোপাল রাই’কে সাথে নিয়ে লেফটেন্যান্ট গভর্নরের সরকারী বাড়ির সম্মুখে দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল অবস্থান বিক্ষোভ করছেন। এই ঘটনার প্রতিবাদে দিল্লী হাইকোর্টে দুটি আবেদন পত্র জমা পড়ে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এই আবেদনের শুনানিতে সোমবার দিল্লী হাইকোর্টে বিচারপতি এ কে চাওলা এবং বিচারপতি নবীন চাওলার ডিভিশন বেঞ্চন সমস্ত দিক পর্যালোচনা করে দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রীকে স্বভাবতই ধীক্কার জানিয়ে বললেন , ‘‌’ কারোর বাড়িতে বা দপ্তরে জোর করে ঢুকে বিক্ষোভ করা যায় না। এর অধিকার কে দিয়েছে আপনাকে।’‌’ বিচারপতিদ্বদয়ের এই প্রশ্নের জবাবে দিল্লী সরকারের আইনজীবি বললেন, “এটা একেবারেই মন্ত্রীদের সিদ্ধান্ত।” আইনজীবির এই কথার প্রেক্ষিতে বিচারপতিরা জানতে চান ‘‌’কে দিয়েছে এই অধিকার? ই ধরনের কাজকে কখনোই ধর্না বলা যায় না।

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে

কারোর বাড়িতে বা দপ্তরে জোর করে ঢুকে ধর্না বা বিক্ষোভ করা যায় না।” প্রসঙ্গত দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী এদিন অবস্থান বিক্ষোভের প্রকৃত কারণ জানিয়ে বলেন আইএএস অফিসারদের ধর্মঘটের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানো। তাঁদের দাবি আইএএস অফিসারদের ধর্মঘট তুলে নেওয়ার জন্য লেফটেন্যান্ট গভর্নর নির্দেশিকা জারি করুন । জানা যাচ্ছে কেজরীওয়াল এই একই দাবি নিয়ে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেও চিঠি দিয়েছেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!