এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > হ্যাকারদের হাত থেকে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত রাখার সেরা পাঁচটি উপায়

হ্যাকারদের হাত থেকে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত রাখার সেরা পাঁচটি উপায়

বর্তমান যুগে হাতে স্মার্টফোন নেই, আর তাতে ফেসবুক নেই – এমন মানুষ রীতিমত গবেষণা করে বার করতে হবে! যেখানে মানুষ অবলীলায় নিজের খুশি, আনন্দ, রাগ, দুঃখ, প্রেম উগরে দিচ্ছেন। ক্রমশ আপন করে নিচ্ছেন ভার্চুয়াল দুনিয়ার বন্ধুদের। আর তাই, বিশ্বজোড়া হ্যাকারদের কাছে বিভিন্ন মানুষের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার হাজারটা কারণ এখন এসে গেছে। যার মধ্যে অন্যতম হল সাধারণ মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেওয়া।

এছাড়াও, সেলিব্রেটির অ্যাকাউন্ট বা কোন পেজ বা কোন বিজ্ঞাপনের ব্র্যান্ডের তথ্য হাতিয়ে নিয়ে সেখানে নিজেদের ইচ্ছামত সেটি ব্যবহার করে সংশ্লিষ্ট মানুষকে অসুবিধায় ফেলা এখন যেন হ্যাকারদের কাছে একটা নেশার মত হয়ে গেছে! এছাড়াও বিতর্কিত পোস্ট করে ইস্যু তৈরী করার অসাধু মনোভাব তো আছেই! কিন্তু, হ্যাকারদের সবথেকে বেশি ‘টার্গেট’ থাকে সাধারণ মানুষের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার। কেননা তা অনেক সোজা, যেহেতু সাধারণ মানুষ কিভাবে অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত রাখতে হয় তা নিয়ে খুব বেশি ওয়াকিবহাল নন!

তাই নিচে দেওয়া পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করে হ্যাকারদের হাত থেকে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি সহজেই সুরক্ষিত রাখুন –

১. পাবলিক ডিভাইসে আপনার ফেসবুক পাসওয়ার্ড সেভ করবেন না – অনেক সময়েই আমরা সাইবার ক্যাফে বা অন্যান্য জায়গা থেকে ফেসবুক করি, যা আর পাঁচটা লোকও ব্যবহার করে। ফলে, এখানে ফেসবুকে লগইন করার পর, আপনার পাসওয়ার্ড কিছুতেই সেভ করবেন না! কেননা হ্যাকাররা তা সহজেই পেয়ে যাবে! তাই যখন লগইন করবেন, তখন একটি ডায়ালগ বক্স আসবে- পাসওয়ার্ড সেভ করবেন? ইয়েস অর নো। আপনি ‘চোখ বুজে’ নো করবেন। যদি আপনার কাছে কোন মোবাইল না থাকে, তবুও আপনি আপনার পাসওয়ার্ড সেভ করবেন না কখনো এবং এই পাসওয়ার্ড কখনো কাউকে জানাবেন না।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

২. সব সময় আদার্স ডিভাইসে লগ আউট করে রাখুন – যখন আপনি লগইন করছেন আপনার ডিভাইসে বা অন্য কোন ক্যাফেতে গিয়ে এবং যখন বেরিয়ে আসবেন তখন লগ আউট করেই বেরিয়ে আসবেন। এমনকি আপনার মোবাইল থেকেও লগ আউট করে রাখবেন এবং আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে আপনি লগ আউট করেছেন। কেননা মনের ভুলে লগইন থেকে গেলে, সেই মোবাইল বা কম্পিউটার অন্যের হাতে গেলেই আপনার অ্যাকাউন্টটি কিন্তু গেল!

৩. টু-ওয়ে ভেরিফিকেশন – অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়ার হাত থেকে বাঁচাতে ফেসবুক এই নতুন ফিচার এনেছে। এখনও যদি এনেবেল না করে থাকেন, আজই করুন। কেননা যদি কোন থার্ডপার্টি বা কোন হ্যাকার আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগইন করার চেষ্টা করে বা হ্যাক করার চেষ্টা করে তৎক্ষণাৎ আপনার ডিভাইসে বা মোবাইলে বা ইমেইলে একটা মেসেজ চলে আসবে সেটাকে আপনাকে লক্ষ করতে হবে। আপনি যদি কখনো কোনো লগ আউট করার পর আবার লগইন করতে যান তখন আপনার কাছে একটা কোড পাবেন সেই কোড দ্বারা আপনি ভেরিফিকেশন করে আবার লগইন করবেন। এটা ঠিক যে একবার লগইন করে, আবার লগ আউট করে, আবার যখন ইচ্ছে হবে তখন লগইন করতে গেলে অসুবিধা হয়। তবে নিরাপদ থাকার জন্য এইটুকু কষ্ট তো করা যেতেই পারে!

৪. কম্পিউটার বা ল্যাপটপের ব্রাউসার ক্লিন আপ করুন – সব সময় আপনার ব্রাউসারকে ক্লিন করে রাখবেন। যদি ঘন ঘন আপনার ব্রাউসার ক্লিন করে রাখেন তাহলে হ্যাকাররা কিন্তু সহজে আপনার অ্যাকাউন্টটির কোনো তথ্য পাবে না। বিশেষ করে অনেকে আজকাল কুকি ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার ফাঁদ পাতে। কিন্তু ব্রাউসার ক্লিন করে রাখলে সেই কুকি ব্যবহার করতে পারবে না আর হ্যাকাররা।

৫. অজানা-অচেনা ওয়েবসাইট বা অ্যাপ্লিকেশন থেকে দূরে থাকুন – অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার বড় মাধ্যম হচ্ছে স্পাইওয়্যার এবং মালওয়ার। তাই এগুলি থেকে যতটা সম্ভব দূরে থাকুন। আপনি কম্পিউটারে কাজ করলে আপনার সামনে অনেক সময় ‘আকর্ষণীয়’ বিজ্ঞাপন, ছবি বা ভিডিও আসবে – যা আপনাকে আরও মজা নেওয়ার জন্য একটি লিঙ্কে ক্লিক করতে উৎসাহিত করবে। জেনে রাখবেন এগুলো হল স্পাইওয়্যার এবং মালওয়ার ‘ইঞ্জেক্ট’ করে দেওয়ার ফাঁদ। অনেক সময় আবার দেখবেন, আপনার সামনে ম্যাসেজ ফুটে উঠবে – আপনার অ্যাকাউন্ট ইতিমধ্যেই হ্যাক হয়েছে! ভালো করে আগে বুঝে নিন সেটি ফাঁদ কিনা। ফাঁদ হলে এড়িয়ে যান, আর সত্যিই অ্যাকাউন্ট হ্যাক হলে ভয় পাবেন না। কেননা অ্যাকাউন্টকে পুনরুদ্ধার করার অনেক উপায়ই আছে। সেটা আপনি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড-এর মাধ্যমে করতে পারবেন আপনার ইমেইল অথবা মোবাইল নম্বর দ্বারা ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!