এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কাটমানি বিক্ষোভের জেরে মহাদেব শরণে তৃণমূল নেত্রী, চাঞ্চল্য এলাকায়

কাটমানি বিক্ষোভের জেরে মহাদেব শরণে তৃণমূল নেত্রী, চাঞ্চল্য এলাকায়

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবির পরই দুর্নীতি যে তার দলকে অনেকটাই গ্রাস করেছে তা বুঝতে বাকি ছিল না তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। আর তাই তো গত 18 ই জুন নজরুল মঞ্চে দলীয় কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠকে কেউ যদি কাটমানি নিয়ে থাকেন, তাহলে তিনি অতিসত্বর তা ফেরত দিয়ে দিন বলে জানিয়ে দেন তিনি।

আর এরপরই দিকে দিকে তৃণমূলের দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের বাড়ি ঘেরাও করে টাকা ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন সাধারণ মানুষ। সরব হয় বিরোধীরাও। আর এর ফলে প্রবল অস্বস্তিতে পড়ে তৃনমূল। তবে এবার সাধারণ মানুষের জনরোষ থেকে বাঁচতে শিব মন্দিরে গিয়ে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণের চেষ্টা করলেন বাঁকুড়া জেলা পরিষদের সদস্য বাণী হাজরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত, এবারে বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রে‌ বিজেপি জয় লাভ করেছে। আর তারপর থেকে কার্যত নিজের বাড়িতেই ছিলেন না তৃণমূলের এই জেলা পরিষদ সদস্য। তবে দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রীর কাটমানি নিয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত নেতা নেত্রীদের উদ্দেশ্যে হুঁশিয়ারিতে যখন রাজ্যজুড়ে তৃণমূলের দুর্নীতিগ্রস্থ নেতারা অস্বস্তিতে পড়েছে, ঠিক তখনই সেই বাণী হাজরা নিজের বাড়িতে ফিরে আসলে তাকে ঘিরে প্রবল বিক্ষোভ দেখান বাসিন্দারা।

জানা যায়, তৃণমূলের এই জেলা পরিষদ সদস্যের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, সরকারি ঋণ সহ নানা প্রকল্পে কাটমানি খাওয়ার অভিযোগ রয়েছে। আর পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাওয়ায় নিজেকে নির্দোষ প্রমাণে এ যেন অভিনব ঘটনা ঘটাতে দেখা গেল সেই বাণী হাজরাকে।

জানা যায়, এদিন সাধারণ মানুষের বিক্ষোভ থেকে বাঁচতে স্থানীয় শিবমন্দিরে গিয়ে শপথ করে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণে মরিয়া চেষ্টা করলেন তৃণমূলের এই হেভিওয়েট নেতা। কিন্তু দুর্নীতি যখন কাউকে গ্রাস করে, তখন কি এইভাবে ভগবানের দ্বারস্থ হয়ে কোনো লাভ হয়!

বিজেপির দাবি, আসলে তৃণমূলের নেতারা এখন ভয়ে রয়েছেন। মানুষ তাদের কাছ থেকে টাকা ফেরতের দাবিতে সোচ্চার হচ্ছেন। আর তাইতো এখন তারা ভগবানের শরণাপন্ন হচ্ছেন। এসব করে কিছুই লাভ হবে না। সব মিলিয়ে এবার কাটমানি নিয়ে প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়ার পর বিক্ষোভকারীদের কাছ থেকে নিজেকে বাঁচাতে নির্দোষ প্রমাণের মরিয়া চেষ্টা করলেন বাঁকুড়া জেলা পরিষদের সদস্য বাণী হাজরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!