এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > কাশ্মীরে 370 ধারা বিলোপের পরই বাংলায় পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবি, জোর চাঞ্চল্য

কাশ্মীরে 370 ধারা বিলোপের পরই বাংলায় পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবি, জোর চাঞ্চল্য


সম্প্রতি কাশ্মীরে 370 ধারা বিলোপ করে সেই জম্মু-কাশ্মীরকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল বলে সংসদে বিল পাস করা হয়েছে। যে ঘটনায় মোদি সরকারের সাহসিকতাকে ধন্যবাদ জানিয়ে ইতিমধ্যেই দেশের মানুষ প্রবল আনন্দে ভাসতে শুরু করেছেন। তবে কাশ্মীরে কেন্দ্রীয় সরকার এই 370 ধারা বিলোপের পরই পশ্চিমবাংলায় দার্জিলিং, কোচবিহার আলাদা হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করতে দেখা গিয়েছিল কংগ্রেসকে। আর এবার এই ব্যাপারে তীব্র আশঙ্কার মেঘ দেখা দিতে শুরু করল।

বস্তুত,পাহাড়ে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে বিমল গুরুংয়ের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হওয়ায় আপাতত পাহাড় ছাড়া তিনি। কোথায় রয়েছেন বিমল গুরুং তারও কোনো হদিশ নেই। তবে হঠাৎই গোপন ডেরা থেকে কাশ্মীরের 370 ধারা অবলুপ্তির পরেই পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবি শোনা যায় তার গলায়।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

যেখানে বিমল গুরুং বলেন, “কাশ্মীর যদি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হতে পারে, তাহলে গোর্খাল্যান্ড কেন হতে পারবে না!” আর এই ঘটনা নিয়েই এখন তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। জানা গেছে, এদিন আগামী 15 আগস্টের পর থেকে ফের গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে মোর্চা রাজনৈতিক কর্মসূচি শুরু করবে বলেও বিমল গুরুং হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন।

বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, এই গোর্খাল্যান্ডের দাবি নিয়ে দীর্ঘদিন বনধ, আন্দোলনে পাহাড়ে পর্যটকের আনাগোনা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। কিছুদিন আগেই 104 দিনের হিংসাত্মক আন্দোলন চলার পর অবশেষে রাজ্য সরকারের পদক্ষেপে কিছুটা শান্তির মুখ দেখেছিল পাহাড়। কিন্তু এবার কাশ্মীর ও লাদাখ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্ত এবং 370 ধারা অবলুপ্তির পর গোপন ডেরা থেকে গোর্খাল্যান্ডের দাবি তুলে বিমল গুরুংয়ের হুঁশিয়ারি সেই পাহাড়কে ফের অশান্ত করে তুলতে পারে বলে মত বিশ্লেষকদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!