এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কন্যাশ্রীর পর মুখ্যমন্ত্রীর মস্তিষ্কপ্রসূত আরও এক প্রকল্পের রাষ্ট্রসংঘের পুরস্কার পাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল

কন্যাশ্রীর পর মুখ্যমন্ত্রীর মস্তিষ্কপ্রসূত আরও এক প্রকল্পের রাষ্ট্রসংঘের পুরস্কার পাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে রাজ্যের মেয়েদের জন্য চালু হয়েছিল কন্যাশ্রী প্রকল্প। আর সেই কন্যাশ্রী আজ বাংলার মাটিতে শুধু নয়, বিশ্বের মাটিতে সমাদৃত হয়েছে। তবে এবার কন্যাশ্রীর পর ফের বিশ্বের দরবারে আরও একবার সমাদৃত হতে চলেছে বাংলা।

সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে রাজ্যের “উৎকর্ষ বাংলা” প্রকল্প এবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের চ্যাম্পিয়ন প্রজেক্টের শিরোপা নিতে চলেছে। জানা গেছে, আগামী 9 এপ্রিল রাষ্ট্রসঙ্ঘের ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের সদর দপ্তর সুইজারল্যান্ডের রাজধানী জেনেভায় বাংলার এই “উৎকর্ষ বাংলা” প্রকল্পকে শিরোপা দেওয়া হবে।

আর লোকসভা নির্বাচনের আগে বাংলার কাছে রাষ্ট্রসংঘের এহেন পুরস্কার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে বাড়তি অক্সিজেন দিতে চলেছে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত 2016 সালের 16 ই ফেব্রুয়ারি রাজ্যের সমস্ত বেকার যুবক-যুবতীদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে রাজ্যে চালু করা হয় এই “উৎকর্ষ বাংলা” প্রকল্প। জানা গেছে, ইতিমধ্যেই এই প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় 7 হাজার 500 জন যুবক যুবতী কারিগরি প্রশিক্ষণ নিয়ে চাকরিও পেয়েছেন। আর এবারে সেই উৎকর্ষ বাংলা প্রকল্পকেই সেরা সেরার শিরোপা দিতে চলেছে রাষ্ট্রসংঘ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত 2003 সাল থেকেই মানুষের কল্যাণে যে সমস্ত প্রকল্প রয়েছে তা নিয়ে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সংস্থা আইটিইউ থেকে একটি প্রতিযোগিতামূলক পুরস্কারের ব্যবস্থা করেছে। আর এবার নানা পুরস্কারের জন্য গোটা বিশ্ব থেকে প্রায় 18 টি ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন চাওয়া হয়।

আর সেখানে ক্যাপাসিটি বিল্ডিং ক্যাটাগরিতে বাংলা তার “উৎকর্ষ প্রকল্প” নিয়ে অংশগ্রহণ করেছিল। জানা গেছে, এই উৎকর্ষ বাংলার পাশাপাশি এই ক্যাটাগরিতে অংশ নিয়েছিল সারা বিশ্ব থেকে বিভিন্ন জায়গা থেকে জমা দেওয়া প্রায় 143 টি প্রকল্প। আর এই প্রজেক্টের মধ্যেই সেরা সেরার শিরোপা পেতে চলেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মস্তিষ্কপ্রসূত বাংলার “উৎকর্ষ বাংলা” প্রকল্প।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে যখন বিরোধী দলের পক্ষ থেকে রাজ্যের অনুন্নয়নের অভিযোগ তুলে ধরা হচ্ছে, ঠিক তখনই বাংলার এই উৎকর্ষ বাংলা প্রকল্প বিশ্ব দরবারে সমাদৃত হওয়ায় সেই সমস্ত বিরোধী দলগুলির মুখে ঝামা ঘষে দিতে সক্ষম হল রাজ্যের শাসক দল বলেই মনে করছেন একাংশ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!