এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কল্যাণের জয়ের রহস্য কি? হল ফাঁস, জেনে নিন

কল্যাণের জয়ের রহস্য কি? হল ফাঁস, জেনে নিন

জয়ের ব্যাপারে প্রথম থেকে অনেকটাই সংশয়ে ছিলেন শ্রীরামপুর লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিজেপির দেবজিৎ সরকারকে 98 হাজার 536 ভোটে হারিয়ে শ্রীরামপুর কেন্দ্র থেকে সংসদে যাওয়ার টিকিটটি পাকা করে নেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে কল্যানবাবুর এই জয়ের রহস্য কি এখন তা নিয়েই রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে জোর বিশ্লেষণ।

জানা গেছে, এই শ্রীরামপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত ডোমজুড় বিধানসভা, জগৎবল্লভপুর বিধানসভা সহ আরও পাঁচটি বিধানসভায় লিড পেয়েই জয়লাভ করেছেন তৃণমূলের প্রার্থী। সূত্রের খবর, ডোমজুড়ে 55 হাজার 33 ভোটে, জগৎবল্লভপুরে 11 হাজার 930 ভোটে, চন্ডিতলায় 17 হাজার, জঙ্গিপাড়ায় 12 হাজার, উত্তরপাড়ায় 3 হাজার 491 এবং চাপদানিতে 2 হাজারের মত ভোটে লিড পেয়েছেন তৃণমূল প্রার্থী।

কিন্তু বিধানসভা ভিত্তিক এলাকাগুলিতে লিড পেয়ে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় জয়লাভ করলেও শ্রীরামপুর শিল্পাঞ্চলের বেশ কিছু এলাকায় বিজেপির ভোট বৃদ্ধি হওয়া এবং সামনে পুর নির্বাচন হওয়ায় তা নিয়ে প্রবল চিন্তার ভাঁজ পড়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের কপালে।

অনেকে বলছেন, ডোমজুড়ে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় লিড পাওয়াতেই তার জয় অনেকটা সহজ হয়েছে। বস্তুত, গতকাল লোকসভায় যেখানে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় ডোমজুড় থেকে 39 হাজার ভোটে এগিয়ে ছিলেন, এবার প্রবল মোদী ঝড়ের মধ্যেও সেখানে বিজেপি প্রার্থীর সাথে তার জয়ের ব্যবধান বেড়েছে 16 হাজারের মতো।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভোট পরিচালনার অন্যতম দায়িত্বে থাকা তৃণমূল নেতা তথা হুগলি জেলা পরিষদের কর্মাধক্ষ সুবীর মুখোপাধ্যায় বলেন, “চণ্ডীতলাতে গত লোকসভার তুলনায় আমাদের লিড তিন হাজারের বেশি বেড়েছে। তবে অস্বীকার করার জায়গা নেই যে ডোমজুড়ের ফলে জয়ের ব্যবধানকে স্বাস্থ্যকর দেখাচ্ছে। ওখানে আমাদের দলের সংগঠন খুব শক্তিশালী। মানুষ বিজেপির মিথ্যা প্রচারকে ছুড়ে ফেলে দিয়ে উন্নয়নের পক্ষে ভোট দিয়েছেন।”

এদিন এই প্রসঙ্গে ডোমজুড়ের তৃণমূল বিধায়ক তথা মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “এখানে আমাদের দলের সংগঠন বেশ মজবুত। আমরা সারা বছর মানুষকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করি। তাই এবারের ভোটেও মানুষ যে আমাদের সঙ্গে আছে, সেটা প্রমাণ হয়ে গিয়েছে।” কিন্তু ডোমজুড়ে যেভাবে তৃনমূল সাফল্য পেল! সেটা অন্য কোনো বিধানসভা হল না কেন?

এই প্রসঙ্গে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “ওই সমস্ত জায়গায় দলের যারা দায়িত্বে আছে, তারাই এটা দেখবে।” সব মিলিয়ে শ্রীরামপুরের তৃণমূল প্রার্থী কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ে ডোমজুড়ই বড় ভরসা ছিল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!