এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কালীঘাটের উন্নয়নের জন্য রাজ্য সরকারের বরাদ্দ ১২৫ কোটি – জানুন বিস্তারিত

কালীঘাটের উন্নয়নের জন্য রাজ্য সরকারের বরাদ্দ ১২৫ কোটি – জানুন বিস্তারিত

দক্ষিণেশ্বরের অনুকরণে কালীঘাটেও স্কাইওয়াক তৈরি করার কথা আগেই ঘোষণা করে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর মস্তিষ্কপ্রসূত এই কর্মসূচির জন্যে বরাদ্দ করা হয়েছে ১২৫ কোটি টাকা। শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি রোড থেকে কালি টেম্পল রোড পর্যন্ত সাড়ে চারশো মিটার লম্বা একটি স্কাইওয়াক তৈরি করা হবে।

এই স্কাইওয়াকে ওঠার জন্যে তৈরি করা হবে তিন জোড়া চলমান সিঁড়িও। এমনটাই এদিন এলাকা পরিদর্শনের পর জানিয়ে দিলেন কলকাতা মেট্রোপলিটন ডেভলপমেন্ট অথরিটি বা কেএমডিএ আধিকারিকরা। এই কর্মসূচির বাস্তবায়ন নিয়ে চূড়ান্ত ব্যস্ততা রয়েছে কেএমডিএ কর্মকর্তাদের মধ্যে।

কালীপুজোর প্রাক্ সন্ধ্যায় দক্ষিণেশ্বরে স্কাইওয়াকের উদ্বোধনের সময়েই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, কালীঘাটের সৌন্দর্যায়ন নিয়েও এরকম একটা চিন্তা ভাবনা রয়েছে তাঁর। কালিঘাটের পুরোহিত,সেবায়তরা চাইলে এরকম একটা স্কাইওয়াক এখানেও তৈরি হতে পারে। দক্ষিণেশ্বরের মতো সুবিধা কালিঘাটের দর্শনার্থীরাও পেতে পারেন। যেমন কথা তেমন কাজ নেত্রীর।

অচিরেই স্কাইওয়াক তৈরি করা হবে সতীপীঠ কালিঘাটে,এমনটাই ঘোষণা করলেন তিনি। দায়িত্ব দেওয়া হল কলকাতা মেট্রোপলিটন ডেভেলপমেন্ট অথরিটিকে। নেত্রীর ঘোষণার পরই নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসনিকমহল। রাণী রাসমণি প্রতিষ্ঠিত দক্ষিণেশ্বরে মন্দিরের তুলনায় গুরুত্ব কিছু কম নেই কালীঘাটের মন্দিরের। ৫১টি সতীপীঠের অন্যতম হল কালীঘাট।

শনি-মঙ্গলবার তো বটেই অমাবস্যায় কালীঘাটে ভিড় উপচে দর্শনার্থীদের। রাজ্যের মানুষ তো বটেই,এমনকি প্রতিদিন ভিন রাজ্য থেকে প্রচুর মানুষ আসেন দক্ষিণাকালী মাকে পুজো দিতে। কলকাতার এমন একটি দর্শনীয় স্থানের পরিকাঠামো উন্নয়ন জরুরি মনে করেই কালিঘাট সংলগ্ন এলাকার সৌন্দর্যায়নের পরিকল্পনা মাথা এসেছে নেত্রীর। দক্ষিনেশ্বরের মতো কালিঘাটেও স্কাইওয়াকে সঙ্গেও থাকবে তিন জোড়া এসকেলেটার।

কালীঘাটে মন্দিরের প্রবেশ পথের দু’পাশে যেভাবে হকার ও ডালাওয়ালারা পসরা সাজিয়ে বসে তাতে যাতায়াতে চরম অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয় দর্শনার্থীদের। একবার এই স্কাইওয়াক তৈরি হয়ে গেলে দর্শনার্থীরা সুষ্ঠুভাবে যাতায়াত করতে পারবেন,বলেই মনে করছেন প্রশাসনিক কর্তারা। আগামী বছরের মার্চ মাস থেকেই এই নির্মান কার্য শুরু করা হবে বলেই জানা যাচ্ছে।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

উল্লেখ্য,লোকসভা ভোটের আগে রাজ্যের মন্দিরগুলোর পরিকাঠামোগত উন্নয়নে তৃণমূলের তৎপরতা দেখে অনেকেই এর নেপথ্যে রাজনৈতিক স্বার্থ খুঁজে পাচ্ছেন। তৃণমূলের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু তোষণের অভিযোগ এনে বাংলায় উগ্র হিন্দুত্বকে হাতিয়ার করে প্রচার কর্মসূচি সারছে বিজেপি ও সঙ্ঘ পরিবার। এই অবস্থায় তৃণমূল প্রমাণ করতে মরিয়া তারা বিজেপি-র থেকেও বড় হিন্দু। এমনটাই মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!