এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > পঞ্চানন বর্মা থেকে স্বপ্না বর্মন! কালিয়াগঞ্জ দখলে কোনো “সিড়িকেই” ছাড়তে নারাজ তৃণমূল

পঞ্চানন বর্মা থেকে স্বপ্না বর্মন! কালিয়াগঞ্জ দখলে কোনো “সিড়িকেই” ছাড়তে নারাজ তৃণমূল

 

কংগ্রেসিদের আঁতুড়ঘর হিসেবে পরিচিত উত্তর দিনাজপুর জেলা। গত 2016 সালে কালিয়াগঞ্জ বিধানসভায় জয়যুক্ত হন কংগ্রেসের বিধায়ক প্রমথনাথ রায়। কিন্তু তিনি পরলোকগমন করার ফলে তার ছেড়ে যাওয়া এই কেন্দ্রে আগামী 25 নভেম্বর উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। যেখানে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলোই এই কেন্দ্র দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল পর্যদস্তু হওয়ার পর সেই তৃণমূল দলের দায়িত্ব নেন প্রশান্ত কিশোর। আর প্রশান্ত কিশোর তৃণমূলের দায়িত্ব নেওয়ার পর এই প্রথম তাকে কোনো নির্বাচনের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। যার পরিপেক্ষিতে বিধানসভা উপনির্বাচনে ভালো ফল করতে সেই প্রশান্ত কিশোরের উপরেই ভরসা রাখছে তৃণমূল কংগ্রেস।

ইতিমধ্যেই করিমপুর, খড়গপুর এবং কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা দখল করতে প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শ মত স্থানীয় ইস্যুকে প্রাধান্য দিয়ে ইশতেহার প্রকাশ করতে শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। খড়গপুরের তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকারের নাম দিয়ে “প্রদীপের পঞ্চ প্রতিজ্ঞা” নামে পাঁচটি বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিয়ে ইশতেহার প্রকাশ করা হয়েছে। আর এবার কালিয়াগঞ্জের তৃণমূল প্রার্থী তপন দেব সিংহকে জয়লাভ করাতে নানা উন্নয়নমূলক বিষয়কে সামনে নিয়ে এসে “তপনদার সাত প্রতিশ্রুতি” নামে ইশতেহার প্রকাশ করল ঘাসফুল শিবির।

সূত্রের খবর, শনিবার কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনে একগুচ্ছ উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাদের নির্বাচনী ইশতেহার প্রকাশ করল তৃণমূল কংগ্রেস। দলীয় প্রার্থী তপন দেব সিংহের নামে “তপনদার সাত প্রতিশ্রুতি” বলে সেই ইশতেহার প্রকাশ করা হয়। এদিন তৃণমূলের ইশতেহার প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা তৃণমূল সভাপতি কানায়ালাল আগরওয়াল, রাজ্য সম্পাদক অসীম ঘোষ, প্রাক্তন জেলা সভাপতি অমল আচার্য, তৃণমূল প্রার্থী তপন দেব সিংহ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, তৃণমূলের এই নির্বাচনী ইশতেহারে মূলত সাতটি দিক তুলে ধরা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে, নাগরিক কল্যান, নাগরিক প্রতিনিধিত্ব, স্বাস্থ্য পরিষেবা, পরিবহন, পরিকাঠামো উন্নয়ন, কৃষক উন্নয়ন এবং শিক্ষার অগ্রগতি। এছাড়াও দলীয় বিধায়ক জয়লাভ করলে অনেক উন্নয়ন করা হবে বলেও সেই ইশতেহারে উল্লেখ করেছে তৃণমূল। যেখানে রাজবংশী সম্প্রদায়ের ভোটব্যাঙ্ক নিজেদের দিকে টানতে ঠাকুর পঞ্চানন বর্মার নামে কালিয়াগঞ্জে মহাবিদ্যালয় এবং স্বপ্না বর্মনের নামে ইন্ডোর স্টেডিয়াম করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তারা।

এছাড়াও কলকাতা পর্যন্ত যাতায়াতের জন্য এসি বাস পরিষেবা, সরকারি বাস স্ট্যান্ড নির্মাণ, নতুন রাস্তা তৈরি, গৃহনির্মাণ, পরিস্রুত পানীয় জল এবং নিকাশি ব্যবস্থার কথাও বলা হয়েছে। তবে উত্তর দিনাজপুর জেলা তথা কালিয়াগঞ্জে রাজবংশী সম্প্রদায়ের মানুষের বেশি বাস। তাই সেই সম্প্রদায়ের ভোটব্যাঙ্ক নিজেদের দিকে আনতে পঞ্চানন বর্মার নামে মহাবিদ্যালয় এবং স্বপ্না বর্মনের নামে ইনডোর স্টেডিয়ামের প্রতিশ্রুতি তৃণমূলকে অনেকটা এগিয়ে দেবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

এদিন এই প্রসঙ্গে ইশতেহার প্রকাশ করে জেলা তৃণমূলের সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল বলেন, “আমরা কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা এলাকার বিভিন্ন সমস্যাগুলোকে চিহ্নিত করেছি। দলের প্রার্থী জয়ী হলে প্রতিশ্রুতি মতই কাজ হবে। বিধায়ক নির্বাচিত হলে একটা হেল্প লাইন নম্বর থাকবে। বিধানসভা এলাকার মানুষ এই নম্বরে ফোন করে তপনবাবুর সঙ্গে কথা বলে বিভিন্ন সহযোগিতা পাবেন।” এখন “তপনদার সাত প্রতিশ্রুতি” নামে ইশতেহার প্রকাশ করে ঠাকুর পঞ্চানন বর্মা এবং স্বপ্না বর্মনের নামে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প গড়ার কথা বলে তৃণমূল কতটা অ্যাডভান্টেজ পায়, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!