এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > জল্পনা বাড়িয়ে তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারেরর বাড়িতে হানা দিল্লির পুলিশের

জল্পনা বাড়িয়ে তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারেরর বাড়িতে হানা দিল্লির পুলিশের


গতকাল রাতেই বিরোধী তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদের বাড়ি হানা দিল দিল্লি পুলিশ। কার্যত ভোটের আগেই ভয় দেখাতেই কেন্দ্র থেকে পুলিশ পাঠানো হয়েছে,এমনটাই অভিযোগ তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারেরর। তবে পুলিশবাহিনীর দলে কোনো মহিলা কর্মচারী না থাকায় বাড়িতে ঢুকতে দেননি তাঁদের কাকলি দেবী। এ প্রসঙ্গে প্রকাশ্যেই জি ২৪ ঘন্টাকে জানালেন তিনি। বৃহস্পতিবার রাত ৯ টা ৩০ নাগাদ পুলিশ তাঁর বাড়িতে চড়াও হয়। তাঁদের মধ্যে সকলেই আবার ইউনিফর্ম পড়ে ছিলেন না। তাঁরা সাংসদকে বারবার প্রশ্ন করতে থাকেন, কাকলি দেবী কোন কেন্দ্রের সাংসদ? কোন দলের প্রতিনিধি? তিনি কি এখানে একা রয়েছেন? এসব প্রশ্ন ভীষণ অস্বস্তিতে ফেলে দিয়েছিলো কাকলি দেবীকে। এমনটাই জানান তিনি। এছাড়া আরো বলেন যে, উক্ত বিষয়টি তিনি তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বকে জানিয়েছেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

প্রসঙ্গত,আজই লোকসভায় আস্থা ভোট চলছে। অন্ধ্রপ্রদেশের জন্য বিশেষ মর্যাদার ইস্যুতে লোকসভার বাদল অধিবেশনে অনাস্থার প্রস্তাব নিয়ে এসেছিলেন চন্দ্রবাবু নাইডুর টিডিপি এবং কংগ্রেস,তৃনমূল,সপা-সহ মোট ১২ টি বিরোধী দল। ওদিনই ওই প্রস্তাব গৃহীত হয়। তৃণমূলের তরফ থেকেও কেন্দ্র বিরোধী এই অনাস্থার প্রস্তাবে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকবে,এটা আগের থেকেই আঁচ করতে পেরেছিলেন কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকার। ওদিকে,আস্থা ভোটে যে বিজেপির পাল্লা ভারী এটাও ভালোভাবে জানতেন বিরোধীরা। তবুও কেন্দ্রীয় সরকারের একাধিক ত্রুটি চিহ্নিত করতে লোকসভা ভোটের আগে আস্থা ভোটকেই হাতিয়ার করেছে বিরোধীরা। লোকসভার অনাস্থা প্রস্তাব গৃহীত হলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মন্তব্য করতেও দেখা যায় এনিয়ে। তিনি জানিয়েছিলেন,এটা আসলে অনাস্থা নয়,৭ মাস পর অর্থাৎ লোকসভা ভোটেই মানুষ আসল অনাস্থা আনবে। বৃহত্তর স্বার্থে তৃণমূল কংগ্রেস সেদিন মানুষের পাশে থাকবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!