এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন ‘অন্যভাবে’ পালন করে কলকাতাকে তাক লাগিয়ে দিলেন কৈলাশ-শঙ্কু

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন ‘অন্যভাবে’ পালন করে কলকাতাকে তাক লাগিয়ে দিলেন কৈলাশ-শঙ্কু

আজ দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ৬৯ তম জন্মদিন। স্বাভাবিকভাবেই গোটা দেশের শুভেচ্ছা উপছে পড়ছে প্রধানমন্ত্রীর জন্য। বিজেপি নেতা-কর্মী-সমর্থকরাও আজকের এই বিশেষ দিনটিকে নিজের মত করে পালন করছেন। কোথাও কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বিলোপকে সামনে রেখে সেলিব্রেশন চলছে, তো কোথাও মোদির নামে বিশাল কেক কেটে। তবে, আজকের দিনটা একটু অন্যরকম করে সেলিব্রেট করলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়।

নরেন্দ্র মোদির আদর্শকে সমাজের মধ্যে আরও বেশি করে ছড়িয়ে দিতে, তিনি জোর দিয়েছিলেন স্বচ্ছতা অভিযানকে সমাজের মধ্যে বিশেষভাবে নিয়ে যেতে। ফলে, সকাল থেকেই তিনি ঝাঁটা হাতে নেমে পড়েন কলকাতার রাস্তায়। নিজেই কলকাতার অলি-গলি ঝাঁট দিয়ে সমাজকে আরও সুষ্ঠ ও সুন্দর করার বার্তা দেন তিনি। আর এই কাজে তিনি সঙ্গে নেন প্রিয় যুব নেতা শঙ্কুদেব পণ্ডাকে। ফলে সকাল থেকেই কৈলাশ-শঙ্কুর যুগলবন্দীকে নিয়ে তুমুল উচ্ছ্বাস গেরুয়া সমর্থকদের মধ্যে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তবে, শুধু স্বচ্ছ ভারত অভিযানই নয়, এদিন প্রধানমন্ত্রীর ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সবকা বিশ্বাস’ নীতিকেও জোরদার করতে দেখা যায় কৈলাশ-শঙ্কু জুটিকে। সাধারণ দরিদ্র পরিবারের মানুষের সুবিধা-অসুবিধার কথা শোনার পাশাপাশি, তাঁদের হাতে নতুন বস্ত্রও তুলে দেন তাঁরা, একই সঙ্গে কলকাতায় মারাত্মক ডেঙ্গির কথা বিবেচনা করে মাশারিও তুলে দেওয়া হয় তাঁদের হাতে। প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে এইভাবেই আমজনতার সঙ্গে খুশি ভাগ করে নিলেন – এই মুহূর্তে বঙ্গ-বিজেপির অন্যতম চর্চিত দুই প্রবীণ ও নবীন নেতা।

এর পাশাপাশিই স্কুলের খুদে ছাত্রছাত্রীদের হাতে ফল মিষ্টিও তুলে দেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয় ও শাকুদেব পান্ডা। লাড্ডু বিতরণ করা হয় দলীয় কর্মী-সমর্থক ও আমজনতার মধ্যে। আর প্রিয় দুই নেতাকে কাছে পেয়ে আমজনতার মধ্যে সেলফি নেওয়ার হিড়িক পরে যায়। তবে সাধারণ মানুষের এই স্বতঃস্ফূর্ত আবেগকে বেশ হাসিমুখেই সামাল দিতে দেখা যায় বিজেপির হাই প্রোফাইল নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয়কে।

আর প্রিয় শিষ্য শঙ্কুদেব পণ্ডাও তাঁর সঙ্গে থেকে সাধারণ মানুষের মনের কথা যাতে ভাষা সমস্যার জন্য কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র কাছে পৌঁছাতে অসুবিধা না করে – তা নিশ্চিত করেন।গেরুয়া শিবিরের কর্মী-সমর্থকরাও এত কাছ থেকে প্রিয় দুই নেতাকে পেয়ে আবেগে ভাসলেন। ঘনঘন স্লোগানে মুখরিত হল কলকাতার রাজপথ। সবমিলিয়ে, প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন একটু ‘অন্যভাবে’ পালন করে কলকাতাকে রীতিমত তাক লাগিয়ে দিলেন কৈলাশ-শঙ্কু জুটি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!