এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রাজ্যের অনাহারের অবস্থান নিয়ে বড়সড় দাবি খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক

রাজ্যের অনাহারের অবস্থান নিয়ে বড়সড় দাবি খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক

ক্ষমতায় আসার আগে বিরোধী নেত্রী থাকার সময় জঙ্গলমহলের বিভিন্ন এলাকায় জনসংযোগ যাত্রায় গিয়ে রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেখেছিলেন যে, অনেক মানুষ অনাহারে পিঁপড়ের ডিম খেয়ে জীবনযাপন করত।

আর তাই গত 2011 সালে রাজ্যে ক্ষমতায় এসে প্রত্যেকের জন্য খাদ্যের ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করেছিল রাজ্যের বর্তমান শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু যাতে খাতায় কলমে এই ব্যবস্থাকে আরও পাকা করা যায় সেজন্য এবার প্রত্যেক জেলায় লিখিত নির্দেশ পাঠাচ্ছে রাজ্যের খাদ্য দপ্তর।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রাজ্যের প্রায় আট কোটি সাত লক্ষ মানুষ এখন রেশনে চাল গম পান। আর এর মধ্যে 7 কোটিরও বেশি মানুষ দুই টাকা কেজি দরে চাল পেয়ে থাকেন। অন্যদিকে ক্ষমতায় এসেই জঙ্গলমহলের মানুষদের জন্য বিশেষত পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামের 13 টি, পুরুলিয়ার 8 টি, বাঁকুড়ার 4 টি ও বীরভূমের 7 টি ব্লকের 35 লাখ 11 হাজার মানুষকে বিশেষ খাদ্য প্যাকেজের আওতায় নিয়ে এসেছে রাজ্য সরকার।

পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের চা বাগানের শ্রমিক ও তাদের পরিবার সমেত 15 লক্ষ মানুষ এবং সুন্দরবনের আয়লা বিধ্বস্ত এলাকার 13 লক্ষ মানুষকে বিশেষ প্যাকেজ বাবদ 2 টাকা কেজি দরে চাল দেয় রাজ্য সরকার। এছাড়াও সিঙ্গুরের অনিচ্ছুক 3619 জন কৃষকের খাদ্য নিরাপত্তাকে সুনিশ্চিত করেছে এরাজ্য।

আর এতসব সাহায্য দিতে জেলা প্রশাসনকে কখনো রাজ্য সরকারের কাছে অতিরিক্ত বরাদ্দ চাইতে হয়নি। মূলত রাজ্যের নির্দিষ্ট খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্প থেকেই তা সকলকে দেওয়া হতো। কিন্তু সম্প্রতি জঙ্গলমহলের লালগড় এলাকায় লোধা সম্প্রদায়ভুক্ত 7 আদিবাসীর মৃত্যুর খবরে নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন।

প্রথমেই সঠিক খাদ্যের যোগানের জন্য তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে মনে করা হলেও পরে রিপোর্টে দেখা যায় যে, মদ্যপানের জন্যই লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে এই বাসিন্দাদের। তবে ঠিক যে কারণেই মৃত্যু হোক না কেন, রাজ্যের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে সুনিশ্চিত করতে এবার আরও উদ্যোগী হচ্ছে রাজ্য সরকার।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সূত্রের খবর, রাজ্যের প্রায় প্রত্যেক জেলায় একটি নির্দেশ পাঠিয়ে খাদ্য দপ্তর বলেছে যে, কোনো ব্যক্তি বা পরিবার অনাহারে রয়েছে এই খবর পেলেই তাদের জন্য সঠিক ব্যবস্থা নিতে হবে। এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, “ক্ষমতায় আসার পর থেকে কোনো পরিবারকে অনাহারে থাকার জন্য প্রশাসনকে খাদ্য পাঠানোর মত ব্যবস্থা করতে হয়নি। এটা আমাদের সাফল্য। তবে যাতে সকলেই খাদ্য পায়, সেই জন্য জেলা প্রশাসনকে কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।” সব মিলিয়ে রাজ্যে যাতে আর কোনো অভুক্ত মানুষ না থাকে সেজন্য উল্লেখযোগ্য ভূমিকা গ্রহণ করছে রাজ্য সরকার।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!