এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > যুব বা মাদার ওয়ার্ড কমিটি নেই কারোরই, নেতৃত্বের দিকে বিস্ফোরোক অভিযোগে উত্তাল শাসকদল

যুব বা মাদার ওয়ার্ড কমিটি নেই কারোরই, নেতৃত্বের দিকে বিস্ফোরোক অভিযোগে উত্তাল শাসকদল

Priyo Bandhu Media

একসময় কংগ্রেসের শক্ত ঘাটি বলে পরিচিত ছিল উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুর শহর। কিন্তু 2016 র বিধানসভার পরেই এখানকার রাজনৈতিক সমীকরন বদলাতে শুরু করে। ইসলামপুর পুরসভার চেয়ারম্যান তথা কংগ্রেস বিধায়ক কানাইলাল আগরওয়াল যোগ দেন তৃনমূলে।

আবার অন্যদিকে তৃনমূলের প্রাক্তন মন্ত্রী তৃনমূল ছেড়ে নতুন দলে যোগ দেন। আর এরপর ইসলামপুর টাউনের তৃনমূল সভাপতি গৌতম গুপ্তের মৃত্যু হলে তাঁর জায়গায় বসানো হয় গঙ্গেশ দে। বদল করা হয় টাউন যুব তৃনমূলের সভাপতিও। এখানেও বিকা দাসকে সরিয়ে আনা হয় কৌশিক গুনকে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

জানা গেছে, এবারের পঞ্চায়েতে এ জেলায় তৃনমূল প্রথম স্থানে ও বিজেপি দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। ইতিমধ্যেই বিজেপি তাঁদের সব বুথ কমিটি তৈরি করে ফেললেও শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেসে এবিষয়ে যথেষ্ট খামতি রয়েছে বলে দলেরই নেতৃত্বের প্রতি নীচুতলার কর্মীদের ক্ষোভে বড়ই অস্বস্তিতে শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস। অভিযোগ, ইসলামপুরে তৃনমূলের শক্ত ভিত থাকলেও এখানে একটি ওয়ার্ডেও মাদার বা যুব কমিটির কোনো সংগঠনই তৈরি হয়নি।

এ প্রসঙ্গে ইসলামপুর পুরসভার চেয়ারম্যান কানাইলাল আগরওয়ালকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, দলের যুব এবং মূল সংগঠনের সভাপতিরা রয়েছেন। তাঁরাই এই কমিটি তৈরি করবেন।” এ প্রসঙ্গে ইসলামপুর শহর তৃনমূলের সভাপতি গঙ্গেশ দে সরকার বলেন, “আপাতত দলের কাউন্সিলররাই নিজের ওয়ার্ডের সংগঠন সামলাচ্ছেন। এমাসের মধ্যেই সমস্ত ওয়ার্ডের কমিটি তৈরি করা হবে।” অন্যদিকে শহরে যুব তৃনমূলের এখনও কমিটি না হওয়ায় শহল যুব তৃনমূল সভাপতি কৌশিক গুন বলেন, “সবে দ্বায়িত্ব পেয়েছি। আগষ্ট মাসের মধ্যে কমিটি তৈরির কাজ সম্পূর্ন হবে।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!