এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > সাম্প্রদায়িক দুর্নীতি’, যুবশ্রী-সবুজসাথী ‘রূপকথার’ মমতা ব্যানার্জি নিয়ে তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল

সাম্প্রদায়িক দুর্নীতি’, যুবশ্রী-সবুজসাথী ‘রূপকথার’ মমতা ব্যানার্জি নিয়ে তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল

মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িকতা এবং দুর্নীতির অভিযোগ করতে গিয়ে ‘সাম্প্রদায়িক দুর্নীতি’ অস্ত্রেই ঘায়েল তৃণমূল কংগ্রেস। পূর্ব বর্ধমানের ভাতার এখন শাসকদলের তোরণের ভাষা বিভ্রাটে বিতর্কেই সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে এসেছে। ‘সাম্প্রদায়িক দুর্নীতি’ শব্দটির পাশে মুখ্যমন্ত্রীকে যুবশ্রী প্রকল্পের ‘রূপকথার’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। কথাটা হওয়া উচিৎ ছিল ‘রূপকার’।

শুধু তাই নয়,তোরণের লেখায় অসংখ্য বানান ভুল লক্ষ্য করছেন স্থানীয়রা। গোটা ঘটনায় তীব্র অস্বস্তিতে পড়েছে এলাকার তৃণমূল নেতারা। তোরণের যাবতীয় ভাষাগত ত্রুটি সংশোধনের আশ্বাস দিয়েছেন তাঁরা।আগামী লোকসভা ভোটেই দিল্লির মসনদ থেকে বিজপি সরকারকে উৎখাত করতে সংকল্প নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

গোটা দেশের বিজেপি বিরোধী জোটের অন্যতম প্রধান মুখ তিনি। সমস্ত অবিজেপি রাজনৈতিক দলগুলোকে একছাতার তলায় আনতে ১৯ জানুয়ারি বিগ্রেড সমাবেশের ডাক দিয়েছেন নেত্রী। বৃহত্তর সেই জনসভায় ১৮ থেকে ২০ টি কেন্দ্র বিরোধী রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত থাকার কথা জানিয়েছেন। ১৯ এর সেই বিগ্রেডের প্রস্তুতিতে জেলায় জেলায় প্রশাসনিক সভা করে বেড়াচ্ছেন নেত্রী এখন। জেলাবাসীদের অভাব- অভিযোগের কথা শুনছেন এবং তার ভিত্তিতে অবিলম্বে পদক্ষেপও নিচ্ছেন তিনি।

রাজ্যের প্রান্তে প্রান্তে জোর কদমে চলছে প্রচার কর্মসূচি। একই তালে চলছে জনসংযোগ বৃদ্ধির কাজটি। এই কর্মসূচির সূত্র ধরেই তৃণমূল সুপ্রিমোর ছবি সহ জোড়াফুলের পোস্টার,ব্যানার,ফেস্টুনের রমরমা জেলায় জেলায়, ব্লকে ব্লকে। কোথাও আবার তোরণও তৈরি করা হয়েছে। সম্প্রতি পূর্ব বর্ধমাণের ভাতার বাজারে প্রচার কর্মসূচির স্বার্থে তেমনি একটি তোরণ তৈরি করেছে স্থানীয় তৃণমূল কর্মীরা। আর সেই তোরণের সূত্র ধরেই ভাষা বিভ্রাটের মুখে পড়ল শাসকদলের স্থানীয় নেতৃত্বরা।

এটা শুধু দলীয় গাফিলতি নয়,চূড়ান্ত অসচেতনতাকেও দর্শায়,এমনটাই মনে করছে অভিজ্ঞমহল। বিশেষ করে ‘সাম্প্রদায়িক দুর্নীতি’ শব্দটি নিয়েই বিতর্ক বেশি তৈরি হয়েছে। এই শব্দটি বাংলা অভিধানে কখনো কেউ শোনেনি বলেই দাবী স্থানীয়দের। গোটা ঘটনাটাই বিরোধীদের কাছে হাস্যকর হিসাবে রূপায়িত হল। কোনো রাজনৈতিক দলের প্রচার কর্মসূচিতে এই ধরণে ভাষা বিভ্রাট সত্যিই বেনজির। তাও আবার একটি রাজ্যের শাসকদলের প্রচার কর্মসূচির প্রশ্ন যেখানে,সেখানে এই ধরণের ভুল কীভাবে হয়? এমনটাই প্রশ্ন উঠছে দফায় দফায়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বিরোধীরা বিশেষ করে বিজেপি শাসকদলের প্রচার কর্মসূচির এই ত্রুটিকে হাইলাইট করে তৃণমূলকে কটাক্ষ করার সুযোগ ছাড়বে না বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। তবে অসচেতনতার অভিযোগ স্বীকার করে নিয়ে তোরণের সমস্ত শব্দগত ভুল শুধরে নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন তৃণমূলের স্থানীয় নেতারা।

Top
error: Content is protected !!