এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অটল বিহারিজির অস্থি-কলস যাত্রা নিয়ে রাজনীতি করছে বিজেপি? জয় ব্যানার্জির উত্তরে চমকে যাবেন

অটল বিহারিজির অস্থি-কলস যাত্রা নিয়ে রাজনীতি করছে বিজেপি? জয় ব্যানার্জির উত্তরে চমকে যাবেন

গতকাল দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তথা ভারতরত্ন অটল বিহারি বাজপেয়ীর অস্থি-কলস সাধারণ মানুষের শেষ শ্রদ্ধাজ্ঞাপনের জন্য হাওড়ার রঘুদেবপুরে রাখা ছিল। তারপর তা নিয়ে যাওয়া হয় উলুবেড়িয়া মনসাতলা পার্টি অফিসে, আর সেখান থেকে পদযাত্রা করে তা উলুবেড়িয়া কালীমন্দির ঘাটে গিয়ে বিসর্জন করা হয়। সমগ্র প্রক্রিয়াটি বিজেপির ন্যাশনাল এক্সিকিউটিভ মেম্বার জয় বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্য সহ-সভাপতি বিশ্বপ্রিয় রায়চৌধুরী ও হাওড়া গ্রামীণ অঞ্চলের বিজেপি সভাপতি অনুপম মল্লিকের নেতৃত্ত্বে হয়।

অটলজির এই অস্থি-কলস যাত্রায় সাধারণ মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। বিজেপির পার্টি অফিস থেকে গঙ্গার ঘাট পর্যন্ত মাত্র ৩ কিলোমিটার রাস্তা পেরোতেই লেগে যায় ২ ঘন্টার বেশি সময়। আর তাই নির্ধারিত সময়ের বেশ কিছুটা পরেই সমগ্র অনুষ্ঠানটি সম্পাদিত হয়। চোখের জল আর আবেগে হাজার হাজার বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে অগণিত সাধারণ মানুষ শেষ বিদায় জানান দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর অস্থি-কলসকে।

এরপরে সন্ধ্যে নেমে যাওয়া অন্ধকারের মধ্যেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বিজেপির ন্যাশনাল এক্সিকিউটিভ মেম্বার জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তাঁকে কাছে পেয়েই সাংবাদিকরা ছুড়ে দেন বিতর্কিত প্রশ্ন – অটল বিহারি বাজপেয়ীর এই অস্থি-কলস যাত্রা নিয়ে কি আপনারা রাজনীতি করছেন। একদমই অপ্রতিভ না হয়ে সোজা ব্যাটে খেলেন বঙ্গ-রাজনীতির এই মুহূর্তে অন্যতম শীর্ষ নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

জয়বাবু বলেন, একদমই নয়। এটা একটা ভারতীয় পরম্পরা – ভারতীয় রীতি। যখন, আপামর ভারতবাসীর হৃদয়ে যাঁর স্থান আছে এরকম কোনো বড়মাপের মানুষ মারা যান তখন তাঁর অস্থি নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় যাওয়া হয় এবং সাধারণ মানুষকে তাঁকে শ্রদ্ধা জানবার এবং তাঁর অস্থি-দর্শনের ব্যবস্থা করা হয়। কেননা, সাধারণ মানুষ তো সবসময় সেই বড় মাপের মানুষটিকে কাছ থেকে দেখতে পায় না – সেইজন্য এই ব্যবস্থা।

অটল শ্রদ্ধার সাথে জয় ব্যানার্জি আরও বলেন, অটল বিহারি বাজপেয়ী একজন বড়মাপের পবিত্র মানুষ ছিলেন এবং তিনি মহাপুরুষ পর্যায়ের মানুষ। তাই তিনি মারা যাওয়ার পর তাঁর আস্থি-কলস নিয়ে ভারতবর্ষের বিভিন্ন জায়গায় যাওয়া হচ্ছে এবং বৈচিত্রময় ভারতবর্ষের আপামর সাধারণ মানুষকে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর ব্যবস্থা করে দেওয়া হচ্ছে। বিরোধীরা যতই এরমধ্যে ‘দুর্গন্ধ’ খোঁজার চেষ্টা করুন – এই শ্রদ্ধাজ্ঞাপনের মাধ্যমে আসলে বেরিয়ে আসছে স্নিগ্ধ গন্ধ – পবিত্র গন্ধ।

সন্ধ্যের নেমে আসা অন্ধকারকে সাক্ষী রেখে গেরুয়া শিবিরের দাপুটে নেতা বলে চলেন, ভারতবর্ষ বৈচিত্রময় দেশ – এখানে প্রচুর ভাষা, প্রচুর ধর্ম, প্রচুর আচার-আচরণ। কিন্তু, সকল প্রকার মানুষের কাছেই অটল বিহারিজি এক শ্রদ্ধার মানুষ, ভালোবাসার মানুষ। হিন্দু-মুসলমান-শিখ থেকে শুরু করে বিজেপি-কংগ্রেস-তৃণমূল-জনতা দল সবার কাছেই উনি শ্রদ্ধেয় ছিলেন। তাই সমস্ত ভারতবাসীই যেন ওনাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে পারেন এই ভাবনা থেকেই অস্থি কলস যাত্রার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এরপর জয়বাবু তুলে ধরেন এদিনের অস্থি-কলস যাত্রায় সাধারণ মানুষের আবেগের বিচ্ছুরণের কথা। তিনি বলেন, আজ ওনার আস্থি-কলস নিয়ে উলুবেড়িয়া মনসাতলা পার্টি অফিস থেকে উলুবেড়িয়া কালীমন্দির ঘাট পর্যন্ত মাত্র ৩ কিলোমিটার রাস্তা পেরোতে ২ ঘন্টা সময় লাগল। কেননা সর্বস্তরের মানুষ এসে ওনার আস্থিকলসে পুষ্পবৃষ্টি করে প্রণাম করে শেষ শ্রদ্ধা জানালেন। তাই আমি অনুরোধ করব এর মধ্যে কোন রাজনীতি খুঁজবেন না, কোনো দুর্গন্ধ খোঁজার চেষ্টা করবেন না।

এরপর প্রয়াত প্রধানমন্ত্রীর চরিত্রের ব্যাপ্তি তুলে ধরে তাঁর বক্তব্য, অটল বিহারি বাজপেয়ী এক বিরাট মাপের মানুষ। উনি যখন রাজনীতি করতেন তখন ইন্দিরা গান্ধীকে উনি মা দূর্গা বলেছিলেন আবার ইন্দিরা গান্ধীর কঠোর সমালোচনাও করেছিলেন। ওনার যেটা ভালো লাগত – তা বিরোধী পার্টিতে হলেও উনি প্রশংসা করতেন, আর খারাপ লাগলে নিজের পার্টির হলেও সমালোচনা করতেন। তাই উনি সবকিছুর উর্ধে এক পবিত্র মানুষ, এক অসাধারন মানুষ, এক বড়মাপের মানুষ।

এরপর কিছুটা বিষণ্ণতার সুরে বাংলা চলচিত্রের একদা পর্দা কাঁপানো নায়ক বলেন, সেই মানুষটির মৃত্যুতে আমরা সবাই মর্মাহত, দুঃখিত, বেদনাহত – তাই এই অস্থি-কলস যাত্রার মাধ্যমে আপামর ভারতবাসীকে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানবার সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছে। এর বাইরে আর কোনো রকম অপবিত্রতা বা রাজনীতি নেই – নেই কোন ভোটের প্রচার। তাই দয়া করে এর মধ্যে কোন রাজনীতি খুজবেন না!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!