এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > জোট গড়ার ক্ষেত্রে এডভ্যান্টেজ কংগ্রেস বুঝিয়ে দিলেন হাই-প্রোফাইল প্রাক্তন মন্ত্রী

জোট গড়ার ক্ষেত্রে এডভ্যান্টেজ কংগ্রেস বুঝিয়ে দিলেন হাই-প্রোফাইল প্রাক্তন মন্ত্রী

পিতা এবং প্রপিতামহ দুজনেই কংগ্রেস ও বিজেপি দুটি দলের সাথেই ঘর করেছেন।পিতা অজিত সিংহ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসাবে ছাপ রেখেছেন বিশ্বনাথপ্রতাপ সিংহ,নরসিংহ রাও,অটলবিহারী বাজপেয়ী এবং এমনকী মনমোহন সিংহ সরকারের মন্ত্রীসভায়।এবার বাবার রাজনৈতিক উথ্থান পতনের স্বাক্ষী থাকা অজিত সিংহের পুত্র জয়ন্ত চৌধুরী কথায় এক অন্য ইঙ্গিত পাচ্ছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।জয়ন্ত চৌধুরী মনে করছেন,2019 এর জোট গড়ে তোলার ক্ষেত্রে বিজেপিকে বহুগুনে টেক্কা দিয়ে এগিয়ে আছে কংগ্রেস।

বিরোধীদের মতে,নরেন্দ্র মোদীর আমলে বিজেপি বুঝিয়ে দিয়েছে তারা ক্ষমতা দখলের জন্য সবকিছু করতে পারে।এখানেই রাজনৈতিক মহল মনে করছে,এখন উত্তরপ্রদেশে যদি কংগ্রেস এই বিরোধী জোটে সামিল হয় এবং অন্যান্য রাজ্যগুলিতে যে যেখানে শক্তিশালী তাদের সাথে সমঝোতায় যায় তবে আখেরে লাভ হবে কংগ্রেসেরই।তবে এবারের 2019 এ যদি বিরোধী জোট ক্ষমতায় আসে তাহলে তাদের তরফে প্রধানমন্ত্রী কে হবেন! এই প্রশ্নের জবাবে অজিত পুত্র জয়ন্ত বলেন,”বিরোধীদের তরফে কাউকে প্রধানমন্ত্রীর মুখ করে ভোটে লড়তে চায় না আরএলডি।”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

উল্লেখ্য,সম্প্রতি দেশের কৈরানা লোকসভার উপনির্বাচনে বিরোধীদের প্রার্থী হিসাবে আরএলডির তবসসুম হাসানের জয়ে খুশি হয়ে জয়ন্তর মন্তব্য,”বিজেপি মোদীকে ঘিরে ব্যক্তিকেন্দ্রীকতার সংস্কৃতি তৈরি করছে।তাই বিজেপি চাইছে বিরোধীরাও  জোটের মুখ হিসাবে কাউকে তুলে ধরুক,যার সাথে লড়াইটা ভালো জমবে।”কিন্তু এবারে বিরোধীদের জোটে তো অনেক মুখ।কাকে সামনে রেখে লড়বে তাঁরা! এ নিয়ে এদিন আরএলডির জয়ন্ত চৌধুরী বলেন,”আমার মনে হয় 2019 এ কে ওপরে আর কে নিচে তা নিয়ে কোনো বোঝাপড়ায় যাওয়া উচিত নয়।সবাই মিলে একযোগে কাজ করলেই সাফল্য আসবে।”

সূত্রে খবর,ইতিমধ্যেই উত্তরপ্রদেশে 2019 এ জোট হবে কি না তা নিয়ে মায়াবতী অখিলেশের মধ্যে তীব্র টানাপোড়েন চলছে।বহুজন সমাজবাদী পার্টীর মায়াবতী উত্তরপ্রদেশের 80 টি লোকসভা আসনের মধ্যে 40 টি আসন নিজেদের দখলে রাখার দাবি করলে সমাজবাদী পার্টীর অখিলেশ বলেন,”এ নিয়ে পরে আলোচনা হবে।তবে মধ্যপ্রদেশের নির্বাচনে আমরা সব আসনে প্রার্থী দেব।” এনিয়ে আরএলডির জয়ন্ত চৌধুরী বিরোধী জোটের সবা দলগুলোকে দেশের স্বার্থে একযোগে কাজ করতে অনুরোধ জানান।সব মিলিয়ে মোদী বিরোধীতায় বিরোধী জোটের এই আসন ভাগাভাগির খেলা কতদিন চলে এখন সেটাই দেখার।

 

   

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!