এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > এবার দল বদলানো নিয়ে মুখ খুললেন আবু হাসেম খান চৌধুরী

এবার দল বদলানো নিয়ে মুখ খুললেন আবু হাসেম খান চৌধুরী

পঞ্চায়েত ভোটের ফলাফলে মুর্শিদাবাদ জেলায় প্রথমে কংগ্রেস ভালো ফল করলেও পরবর্তীতে সমস্ত বিজয়ী প্রার্থীরাই নাম লিখিয়েছেন ঘাসফুল শিবিরে। কিছুদিন আগে সেই মুর্শির্দাবাদ থেকেই একই কায়দায় কংগ্রেস দুর্গ হিসাবে পরিচিত মালদা দখলের ডাক দিয়েছিলেন রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। রাজনৈতিক মহলের অনেকে মনে করেছিল তাহলে কি শুভেন্দু অধিকারী পরোক্ষে গনি পরিবারের সাহায্যেই মালদায় তৃনমূলের ভিত শক্ত করবেন! এদিন সাংবাদিকদের তরফে এইরকমই এক প্রশ্নের জবাবে মেজাজ হারিয়ে কংগ্রেস সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী বলেন, ” গনি খানের পরিবারের বিরুদ্ধে এই প্রশ্ন ওঠাই উচিত নয়।” সূত্রের খবর, এর আগেও গনি খানের পরিবারের আবু নাসের খান চৌধুরী 2015 সালে তৃনমূলে যোগ দিয়েছিলেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

কিন্তু পরিবারের এক সদস্য তৃনমূলে নাম লেখালেও পুরো পরিবার ছিল কংগ্রেস মনোভাবাপন্নই। এবার পঞ্চায়েতেও এই জেলায় কংগ্রেস খুব একটা ভালো ফল না করায় মালদহ জেলার তৃনমূল পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী গনি পরিবারের দুই কংগ্রেস সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী ও মৌসম বেনজির নুরকে তৃনমূলে ঢোকানোরই চেষ্টা করছেন। তৃনমূল পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী কদিন আগে বলেছিলেন, ” মমতাদির সাথে কাজ করতে চান ,আর তাই অনেক বিরোধী নেতারা আমার সাথে যোগাযোগ রাখছেন। যেভাবে মুর্শিদাবাদে কংগ্রেস সাইনবোর্ড হয়েছে ঠিক একই কায়দায় মালদহতেও হবে।” এরপরই জল্পনার সৃষ্টি হয়, তাহলে কী গনি পরিবারের দুই কংগ্রেস সাংসদই কি যোগ দিচ্ছেন তৃনমূলে! এদিন সেই কথা শুনে রেগে আগুন হয়ে গনি পরিবারেরই কংগ্রেস সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী বলেন, ” কে কী বলল তাতে কাছু আসে যায় না। গনি পরিবারে এই মন্তব্যের কোনো আঁচ পড়বে না। আর মালদাতেও কংগ্রেস অক্ষতই থাকবে।” রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, 2014 র লোকসভায় মালদার দুটি আসন আর 2016 র বিধানসভায় এই জেলায় ভালো ফল করেছে কংগ্রেস। তবে পঞ্চায়েতে কংগ্রেসে তৃতীয় স্থানে ফেললেও শাসকদল তৃনমূল যে এই কংগ্রেসের মাটিতে একটি আঁচড় ও দিতে পারবে না তা নিজের মন্তব্য থেকেই স্পষ্ট করে দিলেন মালদার গনি পরিবারের কংগ্রেস সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!