এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > 15 দিনের মধ্যেই তৃণমূলে বড় ভাঙ্গন? ডিসেম্বরের মধ্যেই রাজ্য সরকারের পতন? বড় ইঙ্গিত দিলীপ ঘোষের

15 দিনের মধ্যেই তৃণমূলে বড় ভাঙ্গন? ডিসেম্বরের মধ্যেই রাজ্য সরকারের পতন? বড় ইঙ্গিত দিলীপ ঘোষের

কিছুদিন আগেই রাজ্যে এসে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ মন্তব্য করেছিলেন যে, “আগামী লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল বেরোনোর কয়েক ঘন্টার মধ্যেই রাজ্যের তৃণমূলের এই সরকারটি পড়ে যাবে।” আর এই ব্যাপারে নানা মহলে নানা জল্পনা চললেও এবার সেই দলের সর্বভারতীয় সভাপতি পথেই হেঁটে তৃণমূলের সরকার পড়ে যাওয়ার কথা শোনা গেল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের গলায়।

আর আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল বেরোনোর দিন সেই সরকারটি পড়ে যাওয়ার কথা বললেও বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ তা আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই পড়ে যাবে বলে জানিয়ে দিলেন। সূত্রের খবর, শুক্রবার বারাসাতের এমপি- এমএলএ স্পেশাল কোর্টে একটি মামলায় উপস্থিত হয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “15 দিনের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস পার্টি বলে কিছু থাকবে না। ডিসেম্বরের মধ্যেই সরকারটি পড়ে যাবে।”

অন্যদিকে সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গে স্পর্শকাতর বুথ সম্পর্কে বিজেপি কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের কাছে দাবি জানালে এদিন সেই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, “সারা পশ্চিমবঙ্গই স্পর্শকাতর। আমরা এই ব্যাপারে সমস্ত নথিপত্র ও ভিডিও নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা দিয়েছি।” সদ্য তৃণমূল ছেড়ে হেভিওয়েট বিধায়ক অর্জুন সিং বিজেপিতে গেলে সেই অর্জুন সিংকে নিয়ে তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা মন্ত্রীরা যেভাবে কটাক্ষ করেছেন এদিন তার পাল্টা উত্তর দিতে শোনা যায় দিলীপ ঘোষকে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলেন, “যারা বিজেপিতে নিজের ভবিষ্যৎ দেখছেন তারাই বিজেপিতে আসছেন। ভোটের পর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কে খুঁজে পাওয়া যাবে তো?” অন্যদিকে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় অর্জুন সিংয়ের বিজেপিতে যোগ দেওয়া প্রসঙ্গে বলেন, “কামাই করতে পারছেন না বলেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন অর্জুন।” পাল্টা এর উত্তর দিয়ে সেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “তাহলে কি উনি কামাই করতে পারছেন বলেই তৃণমূলের রয়ে গেছেন।”

তৃণমূল নিজেদের 42 টা আসনে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে দিলেও এখনও পর্যন্ত বিজেপি কেন প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করছে না? এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন, “দেশের কোনো বড় রাজনৈতিক দল এখনও তাদের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেনি। তৃণমূল একটা প্রাইভেট দল। বাকিরা সব কর্মচারী। ফলে তারা যখন খুশি প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতেই পারে। কিন্তু আমাদের মতো গণতান্ত্রিক দলে সময় মতই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হবে।”

এদিকে তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে অভিনেত্রী নুসরত জাহান এবং মিমি চক্রবর্তী দাঁড়ালে তাদের নিয়ে সম্প্রতি যেভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল শুরু হয়েছে এদিন তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে দেখা যায় আসানসোলের বিজেপির বাবুল সুপ্রিয়কে। তিনি বলেন, “আমি মানুষকে অনুরোধ করবো এটা কেউ করবেন না। আসানসোলে সৌজন্যের রাজনীতি আমিই শুরু করেছি। মুনমুন সেনের সঙ্গে যদি দেখা হয় তাহলে এক কাপ কফি খাবো।”

সব মিলিয়ে এবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ আগামী 15 দিনের মধ্যে তৃণমূলে ভাঙ্গনের কথা বলে ডিসেম্বরের মধ্যে রাজ্যের তৃণমূল সরকারটি পড়ে যাবে বলে মন্তব্য করে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলের তীব্র জল্পনা বাড়িয়ে দিলেন বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!