এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কমপক্ষে 50 বিধায়ক বিজেপিতে যাওয়ার জন্য যোগাযোগ রাখছে, বিস্ফোরক বিজেপি নেতা

কমপক্ষে 50 বিধায়ক বিজেপিতে যাওয়ার জন্য যোগাযোগ রাখছে, বিস্ফোরক বিজেপি নেতা

Priyo Bandhu Media

লোকসভা নির্বাচনের পর থেকেই গেরুয়া শিবিরের সাফল্য এবং বিরোধী দলগুলো সংগঠনের ধ্বস নামতে শুরু করে। মোদি ম্যাজিকে এবার বিজেপি আবারও দ্বিতীয়বারের জন্য তিনশোর বেশি আসন নিয়ে কেন্দ্রের ক্ষমতা দখল করেছে। আর তারপর থেকেই বিভিন্ন জায়গায় বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো থেকে গেরুয়া শিবিরে যোগদানের মাত্রা বৃদ্ধি পায়।

সম্প্রতি কর্নাটকে তার কিছুটা হলেও প্রতিফলন পড়েছে। যে ক্ষেত্রে ক্ষমতার মসনদ হারাতে হয়েছে জেডিএস কংগ্রেসের জোটকে। কিছুদিন আগে গোয়াতেও কংগ্রেসের 10 বিধায়ক বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। আর মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনের আগেই বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা ছড়িয়ে পড়ল। আর এই জল্পনা বৃদ্ধি পেয়েছে মহারাষ্ট্রের বিজেপি সরকারের জলসম্পদ মন্ত্রী গিরিশ মহাজনের কথায়।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, রবিবার বিজেপির এই হেভিওয়েট নেতা বলেন, “কংগ্রেস এবং এনসিপি’র কমপক্ষে 50 জন বিধায়ক বিজেপিতে যাওয়ার জন্য যোগাযোগ রাখছে। 1 মাস আগে সিনিয়র এনসিপি নেতা চিত্রা ওয়াঘ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ইচ্ছেপ্রকাশ করেছেন। আগামী দিনে এনসিপি দুর্বল হয়ে পড়বে।”

আর বিজেপি নেতার এই কথায় এবার ছড়িয়ে পড়েছে নানা গুঞ্জন। অনেকে বলছেন, তাহলে কি এবার মহারাষ্ট্রেও বিজেপির শক্তি আরও বৃদ্ধি হতে চলেছে! জানা গেছে, গত 2014 সালের মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনে 288 টি আসনের মধ্যে বিজেপি 122 টি, শিবসেনা 63 টি, কংগ্রেস 42 টি এবং এনসিপি 41 টি আসন পেয়েছিল।

ফলে এবার মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচন যখন শিয়রে রয়েছে, ঠিক তখনই বিজেপি নেতার এই কথা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে বিশ্লেষকরা। সব মিলিয়ে এবার মহারাষ্ট্রের বিজেপির হেভিওয়েট মন্ত্রীর কথার সঙ্গে বাস্তবের আদৌ কতটা মিল থাকে, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!