এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > এবার যোগীর সভায় দিন রাজনৈতিক পতাকা লাগানো নিয়ে বড়সড় নিষেধাজ্ঞা জারি শাসকের

এবার যোগীর সভায় দিন রাজনৈতিক পতাকা লাগানো নিয়ে বড়সড় নিষেধাজ্ঞা জারি শাসকের

বিজেপির সভা নিয়ে ফের বিতর্ক মাথাচাড়া দিয়ে উঠল। লোকসভা ভোটের দিনক্ষণ যতোই এগিয়ে আসছে ততোই রাজ্যে বিজেপি প্রস্তাবিত সভা নিয়ে তুলকালাম কান্ড বাধিয়ে ফেলছে তৃণমূল। এবার রায়গঞ্জে যোগীর সভাকে কেন্দ্র করে বিতর্ক দানা বাধল। যোগী আদিত্যনাথের সভার দিন রায়গঞ্জে রাজ্যপাল আসার খবর জানার পরই নড়েচড়ে বসেছে শাসকদল।

রায়গঞ্জ পৌরসভার তরফ থেকে স্পষ্ট নির্দেশিকা দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে,যেহেতু রাজ্যপাল আসবেন তাই রায়গঞ্জে পতাকা,ফেস্টুন ও গেট কিছুই লাগানো যাবে না। প্রয়োজনে জাতীয় পতাকা লাগানো যেতে পারে। এই নির্দেশ অমান্য করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁসিয়ারীও দিয়েছে শাসকদল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

তবে তৃণমূলের এই হুঁসিয়ারী দেখে পিছু হটতে রাজি নয় বিজেপি। রায়গঞ্জ পৌরসভার এই সিদ্ধান্তকে গনতন্ত্র বিরোধী বলার পাশাপাশি জেলা বিজেপি নেতৃত্বের তরফ থেকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীকে রায়গঞ্জে আমন্ত্রণ জানাতে দলীয় পতাকা লাগানো থেকে কেউ তাঁদের আটকাতে পারবে না।

আগামীকাল অর্থাৎ ৩ ফেব্রুয়ারি রায়গঞ্জে গেরুয়া ঝড় তুলতে আসছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। লোকসভা ভোটের মুখে তাঁর সভাকে সফল করতে কোমর বেঁধে আসরে নেমেছে স্থানীয় বিজেপি নেতা-কর্মীরা। জোরকদমে চলছে প্রচারমূলক কর্মসূচি। কিন্তু একইদিনে রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তন অনুষ্ঠানে হাজির থাকার কথা রয়েছে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর।

থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। রাজ্যপালের রায়গঞ্জে আসাটাকেই হাতিয়ার বানিয়ে বিজেপির কর্মসূচিতে ব্যাঘাত ঘটাতে চাইছে তৃণমূল। আর সেজন্যেই ওদিন এলাকায় কোনো রাজনৈতিক পতাকা লাগাতে সাফ নিষেধাজ্ঞা জারি করল রায়গঞ্জ পুরসভা। এমনটাই অভিমত বিশ্লেষকদের।

এ প্রসঙ্গে,রায়গঞ্জ পৌরসভার চেয়ারম্যান সন্দীপ বিশ্বাস জানিয়েছেন,কোন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আসছেন তা নিয়ে বিন্দুমাত্র মাথাব্যাথা নেই তাঁদের। পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে থাকবেন এটাই বড় বিষয় তাঁদের কাছে। তাই কোনও রাজনৈতিক দলের পতাকা, ব্যানার, ফেস্টুন, গেট রায়গঞ্জ শহরে লাগাতে দেওয়া হবে না। যদি তারপরও কেউ এমন করে তবে আইনের পথে হেঁটে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তৃণমূলের এই হুঁসিয়ারীকে পাত্তা দিতে নারাজ গেরুয়াশিবির। এই বিষয়ে উত্তর দিনাজপুর জেলা BJP-র সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ লাহিড়ি বলেন,গণতন্ত্রকে পদদলিত করতে চাইছে তৃণমূল। আর সেজন্যেই এধরণের গনতন্ত্রবিরোধী নতুন নতুন নিয়ম সামনে আনা হচ্ছে। তবে তৃণমূলের এই হুমকিকে বরদাস্ত করা হবে না।

রাজ্যে যোগীজি-কে স্বাগত জানাত যা যা আয়োজন বাঞ্ছনীয়,সবটাই করা হবে। আর এ ব্যাপারে বিজেপি কারো বাধা মানবে বলে পাল্টা তৃণমূলের দিকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন তিনি। এর জেরে আগামীকাল যোগীর সভাকে কেন্দ্র করে বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে রায়গঞ্জে উত্তেজনা ছড়ানোর আশঙ্কা করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!