এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > উপনির্বাচনে হারের পরই যোগীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ দলে,উত্তরপ্রদেশ নিয়ে গভীর সমস্যায় মোদী-শাহ

উপনির্বাচনে হারের পরই যোগীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ দলে,উত্তরপ্রদেশ নিয়ে গভীর সমস্যায় মোদী-শাহ

একের পর এক উপনির্বাচনের ফলাফলে সারা দেশে বিরোধী জোটের কাছে মোটেই সুবিধাজনক অবস্থায় নেই বিজেপি।মোদী ও অমিত শাহের কাছে ইয়েসম্যান বলে পরিচিত যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য উত্তরপ্রদেশে মুখ পুড়েছে বিজেপির।আর তা নিয়েই এবারে দলের ভেতরেই যোগীর বিরুদ্ধে সরব তার দলেরই দুই বিধায়ক।

এখানেই শেষ নয়।যোগী আদিত্যনাথের দুর্নীতিই যে বিজেপির খারাপ ফলের জন্য দায়ী তা প্রকাশ্যে বলতে বিন্দুমাত্র দ্বিধাবোধ করেননি যোগী সরকারের দুই বিধায়ক শ্যামপ্রকাশ এবং সুরিন্দর সিংহ।রাজনৈতিক হল মনে করছে,একদিকেই নির্বাচনে এরুপ ফলাফলে করুন অবস্থা বিজেপির,তারপর আবার দলেরই দুই বিধায়কে যোগী আদিত্যনাথ সম্পর্কে এরুপ মন্তব্যে অনেকটাই অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

কদিন আগেই উত্তরপ্রদেশের হারদোই জেলার গোপামাউ বিধানসভার বিধায়ক শ্যামপ্রকাশ ফেসবুকে যোগী সরকৃরের বিরুদ্ধে একটি ব্যাঙ্গাত্মক কবিতা পোষ্ট করেন।অন্যদিকে গোবলয়ের বালিয়া জেলার বেরিয়ার বিধায়ক সুরেন্দ্র সিংহ বলেন,”যোগী সরকার পুরোটাই দুর্নীতিগ্রস্ত।” যা নিয়ে সোরগোল পড়ে গেছে দলের অন্দরে।

প্রধানমন্ত্রী ভোট প্রচারে আসেননি।যোগী আদিত্যনাথের ওপরেই পড়েছিল প্রচারের ভার।সেইজন্য দলের এই হারের দায়ও যোগীকেই নিতে হবে বলে তাদের অভিযোগ।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের প্রশ্ন,তাহলে শেষপর্যন্ত কি দলীয় বিধায়কদের চাপে যোগীর বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেবে বিজেপি! নাকি দলের বদনামের জন্যে দলীয় বিধায়কদের সতর্ক করবে তারা!তবে যোগী ইস্যুতে যে প্রবল চাপে রয়েছে বিজেপি তা নিঃসন্দেহে বলাই যায়।

Top
error: Content is protected !!