এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > জঙ্গলমহলের ভোটব্যাঙ্ক ফিরিয়ে আনতে এবার উৎসবেই 6 কোটি টাকা খরচ রাজ্য সরকারের

জঙ্গলমহলের ভোটব্যাঙ্ক ফিরিয়ে আনতে এবার উৎসবেই 6 কোটি টাকা খরচ রাজ্য সরকারের

Priyo Bandhu Media


 

2011 সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষমতায় আসার পরই জঙ্গলমহলে শান্তি স্থাপন করতে উদ্যোগী হন। মাওবাদী উপদ্রুব এলাকায় বিভিন্ন রকম প্রকল্প এনে সেখানকার মানুষদের মন জয় করেন বাংলার প্রশাসনিক প্রধান। যে জঙ্গলমহলের মানুষ এককালে সকালে চোখ খুললেই রক্ত দেখতে পেতেন, সেই জঙ্গলমহলে শান্তি ফিরিয়ে এনেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে সেখানে শান্তি ফেরানোর চেষ্টা করা হলেও যতদিন এগিয়েছে, ততই বিজেপির উত্থান লক্ষ্য করা গেছে।

গত পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে জঙ্গলমহলে বিজেপির ভোটব্যাংক তড়িৎ গতিতে বৃদ্ধি পেয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে সামনের বিধানসভা নির্বাচনে নিজেদের ভোটব্যাঙ্ক ফিরে পেতে উৎসবের সাধে মানুষকে সমৃদ্ধ করতে মরিয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সূত্রের খবর, আগামী 2 জানুয়ারি থেকে 9 জানুয়ারি পর্যন্ত কুমুদকুমারী ইনস্টিটিউট মাঠে জঙ্গলমহল উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। জানা গেছে, বুধবার ঝাড়গ্রামে এই জঙ্গলমহলে উৎসবের একটি প্রস্তুতি বৈঠকে যোগ দেন রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন ঝাড়গ্রামের জেলাশাসক আয়েশা রানি এ, পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান সুকুমার হাঁসদা, ঝাড়গ্রাম এবং বাঁকুড়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি, বিধায়ক চূড়ামণি মাহাতো সহ প্রশাসনের বিভিন্ন আধিকারিকরা।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর এই উৎসবকে সার্থক মন্ডিত করতে বিপুল পরিমাণ টাকা বরাদ্দ হয়েছে বলে জানা গেছে। যেখানে ঝাড়গ্রাম শহরে রাজ্যস্তরীয় জঙ্গলমহল উৎসবে প্রায় 6 কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। কিন্তু এত খরচ বাড়ানোর কারণ কী! এদিন এই প্রসঙ্গ পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, “খরচ বাড়লেও তা আমরা পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন পর্ষদ থেকে ব্যবস্থা করব।” তবে কোন মাঠে এই অনুষ্ঠান হবে, তা নিয়ে প্রথম থেকেই একটা বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। কেননা প্রতিবছর যে কুমুদকুমারী ইনস্টিটিউটের মাঠে অনুষ্ঠান হয়, সেই মাঠে ঘাস লাগানো হয়েছে। যার ফলে সেখানে সৌন্দর্য বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই সাধারণ মানুষ থেকে প্রশাসনের অনেকেই চাইছিলেন, যাতে এই মাঠে সেই মেলা না হয়।

তবে এদিনের বৈঠক থেকে এই কুমুদকুমারী ইনস্টিটিউটের মাঠেই সেই অনুষ্ঠান করা হবে বলে জানিয়েছেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “ওটা আমাদের সম্পদ। আমাদেরই রক্ষা করতে হবে। জেলাশাসককেও সেই কথা বলেছি। মুখ্যমন্ত্রীকেও অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করার জন্য বলব।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে লোকসভা নির্বাচনে জঙ্গলমহল এলাকাগুলিতে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে বিজেপি। যার ফলে তৃণমূল এখানে ব্যাপক চাপে পড়েছে। আর তাইতো আগামী বিধানসভা নির্বাচনের আগে এলাকায় বড় মাপের জঙ্গলমহল উৎসব করে সাধারণ মানুষের মন জয় করতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!