এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > হাসি ফোটা জঙ্গলমহলে গ্রীষ্মের দাবদাহে নতুন সমস্যা রাজ্য সরকারের জন্য

হাসি ফোটা জঙ্গলমহলে গ্রীষ্মের দাবদাহে নতুন সমস্যা রাজ্য সরকারের জন্য

পশ্চিমবঙ্গের অন্যতম রুক্ষ শুষ্ক জেলা বাঁকুড়া। গরমের শুরু থেকেই সেখানে জলাভাব । পাণীয় জলের জন্যে গোটা জেলার নানা প্রান্তে একরকম হাহাকার পড়ে যায়। নদী-নালা-পুকুড় সর্বত্রই জলস্তর নীচে নেমে যায়। এই সমস্যা বহু যুগ ধরেই অপরিবর্তিত। এলাকাবাসীদের অভিযোগ এই দুরাবস্থার কথা একাধিকবার প্রশাসনকে জানিয়েও কোনো সুফল পাওয়া যায়নি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

গিয়েছে রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনের পূর্বে বাঁকুড়ার জঙ্গলমহলের সারেঙ্গার পড়্যাশোল গ্রামে পানীয় জলের সমস্যা সংবাদ শিরোনামে উঠে এলে স্থানীয় প্রশাসন তড়িঘড়ি নলকূপ সারাইয়ের উদ্যোগ নিয়েছিল। সেইমতো কাজও শুরু হয়। কিন্তু গরমের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথেসাথেই কয়েকদিনের মধ্যে নলকূপগুলি তাদের পুরোনো দশায় ফিরে গেলো।

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সরকারের পক্ষ থেকে জঙ্গলমহলের উন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্পের সূচনা হলেও বর্তমানে সরকারী কাজকর্মে নানান গাফিলতির অভিযোগ উঠেছে।ঐ এলাকার স্থানীয় অধিবাসীদের সূত্রে জানা গিয়েছে আদিবাসী অধ্যুষিত এই গ্রামের ১৮টি পরিবার এখনও পানীয় জল নদীর খাল থেকে সংগ্রহ করেন। গ্রামের মধ্যে দু’টি নলকূপ থাকলেও সেগুলি ব্যবহারযোগ্য নেই। স্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের নিজস্ব প্রকল্পে গ্রামে জলের পাইপ লাগানো হলেও এখনও তাতে জল সরবরাহ হয়নি। সব মিলিয়ে ঐ অঞ্চলের মানুষের জীবন জলাভাবে বিপর্যস্ত। এই প্রসঙ্গে প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট আধিকারিকরা জানালেন তাঁরা সমগ্র বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!