এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > টাকা মারা নিয়ে দলীয় নেতাদের প্রতি সাধারণের ক্ষোভের হাতে-গরম প্রমান পেলেন পার্থ চ্যাটার্জি

টাকা মারা নিয়ে দলীয় নেতাদের প্রতি সাধারণের ক্ষোভের হাতে-গরম প্রমান পেলেন পার্থ চ্যাটার্জি

গত শনিবার ঝাড়গ্রামের বেলপাহাড়িতে এক রাজননীতিক সভায় যোগ দিতে স্থানীয় আদিবাসীদের নিয়ে যাওয়া একটি বাস দুর্ঘটনার মুখে পরে, ঘটনায় মারা যান ৬ জন, আহত হন প্রায় ৩০ জন। দলীয় কাজে এই সময় রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব ওই অঞ্চলে থাকায় – স্থানীয় বিধায়ক শ্রীকান্ত মাহাতো, জেলা সভাধিপতি উত্তরা সিংহ হাজরা সহ অন্যান্য স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস শীর্ষনেতাদের নিয়ে তিনি ছুটে যান মৃতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে। সেখানে একে একে শোকস্তব্ধ ছটি পরিবারের সঙ্গেই দেখা করেন পার্থবাবু। মৃতদের পরিবারকে সমবেদনা জানানোর পাশাপাশি তিনি জানান, মৃতদের ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার যাবতীয় দায়িত্ত্ব রাজ্য সরকার নেবে। পাশাপাশি মৃতদের পরিবারের কোনও একজনকে সরকারি চাকরি দেওয়ার পাশাপাশি আর্থিক সহায়তাও দেওয়া হবে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকেই।

আর তাঁর এই ঘোষণার পরেই যেন আগুনে ঘৃতাহুতি হয়! এক নয় একাধিক জায়গায় তাঁর মুখের উপর মৃতদের পরিবার জানিয়ে দেয়, আর্থিক সাহায্য দিতে হলে যেন সরাসরি তাঁদের হাতেই দেওয়া হয়, তৃণমূল কংগ্রেস নেতাদের হাতে সেই টাকা দিলে নেতারা টাকাটা ‘মেরে’ দেবেন, তাঁরা আর তা হাতে পাবেন না। মৃতদের পরিবারের এই ক্ষোভ ও সরাসরি অভিযোগে তখন কার্যতই চূড়ান্ত রকমের অপ্রস্তুত রাজ্য রাজনীতির হেভিওয়েট নেতা পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সাধারণ মানুষের স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের প্রতি এইরকমের ক্ষোভ দেখে চূড়ান্ত ক্ষুব্ধ তৃণমূল কংগ্রেস মহাসচিব বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চান সাধারণ মানুষ যেন সরকারি প্রকল্পের সবটাই পান। তারমাঝে কেউ যদি চার আনা কেটে নেন, তাঁদের আমরা চিহ্নিত করব এবং উপযুক্ত ব্যবস্থা নেব। সরকারের ও দলের কোনো বদনাম হতে আমরা দেব না।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!