এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > শান্তিপুরে অশান্তি! কৃষ্ণনগরের পর এবার এখানেও জগদ্ধাত্রী বিসর্জনে পুলিশের বেধড়ক লাঠিচার্জ

শান্তিপুরে অশান্তি! কৃষ্ণনগরের পর এবার এখানেও জগদ্ধাত্রী বিসর্জনে পুলিশের বেধড়ক লাঠিচার্জ

জগদ্ধাত্রী পুজোর বিসর্জনকে কেন্দ্র করে তুলকালাম শান্তিপুর! বিসর্জনের দ্বিতীয় দিনে কৃষ্ণনগর শান্তিপূর্ণ থাকলেও অশান্তির ঘটনা ঘটল শান্তিপুরেই। এদিন গভীর রাতে শান্তিপুরের কৃষ্ণকালীতলা মোড়ে একটি বারোয়ারির শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীদের উপর বেধড়ক লাঠিচার্জের অভিযোগ উঠল পুলিসের বিরুদ্ধে।

একটি যুবক গুরুতর আহত হওয়ার জেরে এই অভিযোগ প্রকাশ্যে এল। এই ঘটনার পরই পরদিন সকাল ৮ টা পর্যন্ত বিসর্জন পর্ব বন্ধ রাখা হয়। পুলিশ প্রশাসনকে ঘিরে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে পুজো কমিটিরগুলির সদস্যরা। পরে পুলিশের আশ্বাস পাওয়ার পর বিক্ষোভ থামে এবং বিসর্জন কর্মসূচি সম্পন্ন হয়।

জেলা সূত্রের খবর, সোমবার রাত ১ টার মধ্যে নির্বিঘ্নে বিসর্জন হয়েছে কৃষ্ণনগরে। এবং দ্বিতীয় দিনের বিসর্জন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ার জন্যে পুলিশের প্রশংসাও করেছে কৃষ্ণনগরবাসী। কিন্তু তার পরেই ঘটল বিপত্তি। বিসর্জন কর্মসূচীকে ঘিরেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠল শান্তিপুরে।

সাধারণত শান্তিপুরে একাদশীর দিন সবকটি বারোয়ারী প্রতিমা নিরঞ্জন করা হয়। ঘটনার দিন রাত ৩টে নাগাদ শান্তিপুরের কৃষ্ণকালীতলা মোড়ে ক্ষুদে কালীতলা বারোয়ারির শোভাযাত্রা যাচ্ছিল। রাস্তা সংকীর্ণ ছিল এবং পুলিশ শোভাযাত্রাকারীদের দ্রুত এগোতে বলছিল। এ নিয়ে প্রথমে পুলিশের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় বারোয়ারীর সদস্যদের। এরপর হঠাৎ করেই নাকি লাঠিচার্জ করতে শুরু করে দেয় পুলিশ।

এক সিভিক ভলেন্টিয়ারের মারের চোটে ড্রেনে পড়ে যান অমিত বিশ্বাস নামের এক যুবক। মাথায় ব্যাপক চোটও পান তিনি। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে প্রথমে শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতাল ও পরে কল্যাণী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। এই ঘটনার পর বারোয়ারির সদস্যরা বিসর্জন বন্ধ করে দেয়। রাস্তা অবরুদ্ধ রেখে পুলিসকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে।

অভিযুক্ত সিভিক ভলেন্টিয়ারের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা এবং আক্রান্তে চিকিৎসার খরচের দাবীতে এই বিক্ষোভে ফেটে পড়েন তাঁরা। পরিস্থিতি এতোটাই প্রতিকূল হয়ে ওঠে যে অন্যান্য পুজো কমিটিগুলোও বিসর্জন বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়। এদিকে তখনও ১০ টারও বেশি পুজো কমিটির বিসর্জন বাকি ছিল। সকাল ৮ টা পর্যন্ত বিসর্জন বন্ধ রাখা হয়। পরে পুলিশের আশ্বাসে ফের বিসর্জন শোভাযাত্রা শুরু হয়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে ক্ষুদে কালীতলা বারোয়ারী সদস্যদের অভিযোগ, প্রতিবছরই নির্বিঘ্নে বিসর্জন কর্মসূচি সম্পন্ন হয় শান্তিপুরে,এবার শুধুমাত্র পুলিশের জন্যেই এই সমস্যার মুখে পড়তে হল তাদের। আহত ওই যুবক এখনো আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভার্তি রয়েছেন। তবে সব অভিযোগ পুলিশ স্বীকার করতে রাজি হল না। শান্তিপুর থানার পুলিসের দাবী, একটা বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটেছিল। তবে লাঠিচার্জ হয়নি। জেলার পুলিস সুপার রূপেশ কুমার বলেন,”কৃষ্ণনগরে শান্তিপূর্ণভাবে বিসর্জনপর্ব মিটেছে। কোনও গণ্ডগোলের ঘটনা ঘটেনি।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!