এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ইসলামপুর নাম বদলে হল ‘ঈশ্বরপুর’, ভিএইচপির ‘কীর্তিতে’ তীব্র বিতর্ক রাজ্যজুড়ে

ইসলামপুর নাম বদলে হল ‘ঈশ্বরপুর’, ভিএইচপির ‘কীর্তিতে’ তীব্র বিতর্ক রাজ্যজুড়ে

দেশে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বিভিন্ন ঐতিহাসিক জায়গাগুলির নাম পরিবর্তন করে রাজনৈতিক ভাবে নিজেদের আধিপত্য স্থাপনে উদ্যোগী হচ্ছে বিজেপি বলে মাঝেমধ্যেই অভিযোগ করছে বিরোধীরা।

ইতিমধ্যেই ইলাহাবাদকে “প্রয়াগ রাজ” ফৈজাবাদকে “অযোধ্যা নগর” করে বিতর্ক বাড়িয়ে দিয়েছেন বিজেপি পরিচালিত উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। কিন্তু এবার সেই বিজেপির নাম পরিবর্তনের আঁচ এসে পড়ল এই বাংলাতেও।

সূত্রের খবর, উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ পরিচালিত ‘সরস্বতী শিশু মন্দির ও বিদ্যামন্দির’ এর একটি স্কুল রয়েছে। আর সেইখানে বোর্ডে ইসলামপুর এর জায়গায় লেখা আছে ‘ঈশ্বরপুর’। আর এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে জেলার শিক্ষা মহলে।

স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে জানা গেছে যে, এই স্কুলটি মধ্যশিক্ষা পর্ষদ অনুমোদিত।আরে এইখানে অনেকের প্রশ্ন, রাজ্য সরকারের নিয়ন্ত্রাধীন মধ্যশিক্ষা পর্ষদ অনুমোদিত কোনো স্কুলের নাম এইভাবে কি পাল্টে দিতে পারে কোনো সংগঠন? তাছাড়াও একটি শহরের নামের সঙ্গে সেই এলাকার অনেক আবেগ জড়িত। তাহলে হঠাৎ কেন সেই ইসলামপুরের নাম ‘ঈশ্বরপুর’ করে দিলেন ভিএইচপি সংগঠনের নেতারা?

এদিন এ প্রসঙ্গে ভিএইচপির পূর্ব ভারতের সংগঠন সম্পাদক শচীন্দ্রনাথ সিংহ বলেন, “ইসলাম শব্দটি ঔপনিবেশিক। মুসলিম শাসকদের চাপিয়ে দেওয়া। তাই ঐতিহাসিক ভাবে ওই জায়গার প্রকৃত নাম ঈশ্বরপুরকেই কার্যালয়ের বোর্ডে রাখা হয়েছে।”

কিন্তু সংগঠনের কর্তারা কিভাবে নিশ্চিত হচ্ছেন যেই ইসলামপুরের নাম আগে ঈশ্বরপুরই ছিল! তাছাড়া ভিএইচপি তরফে এই আশ্চর্য দাবির পেছনে আদৌ তেমন কোনো সত্যতা নেই বলেও এদিন জানিয়ে দিয়েছেন প্রখ্যাত ইতিহাসবিদেরা। ইসলামপুরের ‘ইসলাম’ যেমন একটি আরবি শব্দ, ঠিক তেমনি ‘পুর’ একটি বৈদিক শব্দ। আর এই দুইয়ের মিলনে উৎপত্তি হয়েছে ভারতীয় সংস্কৃতির বলে এদিন জানান গৌতম ভদ্র।

অন্যদিকে এই ইসলামপুরের নাম ঈশ্বরপুর করে দেওয়ার পেছনে আদতে গেরুয়া সন্ত্রাস রয়েছে বলেই দাবি করছেন ইতিহাসবিদ রজতকান্ত রায়। এদিকে ইতিহাসবিদদের পাশাপাশি স্থানীয়দের মনেও তৈরি হয়েছে একগুচ্ছ প্রশ্ন। মধ্যশিক্ষা পর্ষদ অনুমোদিত স্কুলে কেন এ ধরনের কাজ করবেন ভিএইচপি সদস্যরা সেই ব্যাপারেও এদিন প্রশ্ন তোলেন এলাকাবাসীদের একা়ংশ।

কেন সরকার অনুমোদিত স্কুলে ইসলামপুরের নাম পাল্টে ঈশ্বরপুর করে দেওয়া হল? এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “ভিএইচপি পরিচালিত স্কুল আদৌ পর্ষদ অনুমোদিত কিনা তা খবর নিয়ে দেখব। তবে এ ধরনের অনুমতি আমরা কখনোই কাউকে দিই না। যদি এমনটা হয় তাহলে নিশ্চয়ই আমরা ব্যবস্থা নেব। কারন এই বিভেদের রাজনীতি রাজ্য সরকার কখনোই বরদাস্ত করবে না।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে যে যাই বলুন না কেন, যে ভাবে উত্তর প্রদেশের মত এই রাজ্যেও সাধারণ মানুষের ভাবাবেগকে তোয়াক্কা না করে ইসলামপুরের মত শহরের নাম ‘ঈশ্বরপুর’ করে দিলেন ভিএইচপি সংগঠনের কিছু সদস্য, তাতে হতবাক বিশিষ্টজনেরা‌।

Top
error: Content is protected !!