এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > ইসলামপুর ‘ঈশ্বরপুর’ হতেই বেসরকারি স্কুলগুলির রাশ টানার প্রক্রিয়া শুরু করলেন শিক্ষামন্ত্রী

ইসলামপুর ‘ঈশ্বরপুর’ হতেই বেসরকারি স্কুলগুলির রাশ টানার প্রক্রিয়া শুরু করলেন শিক্ষামন্ত্রী

সম্প্রতি উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ এর একটি স্কুলে ইসলামপুরের বদলে “ঈশ্বরপুর” নাম রাখা হয়েছে। আর যানিয়ে এখন সরগরম হয়ে উঠেছে গোটা শিক্ষা মহল। ঐতিহাসিক শহর, স্থান বা সংস্থার নাম বদলের এই রেওয়াজ যে গেরুয়া শিবিরের ইন্ধনেই হচ্ছে বলে অভিযোগ অনেকের।কিন্তু আর যাতে কেউ এই নাম বদলের সাহস দেখাতে না পারে এবার সেই ব্যাপারে কড়া পদক্ষেপের ইঙ্গিত দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সাধারণ বেসরকারি স্কুল খুলতে গেলে শিক্ষা দপ্তরের নো অবজেকশন সার্টিফিকেটের প্রয়োজন হয়। জানা যায়, জেলা পরিদর্শক ও একটি দল সেই আবেদন করা স্কুলটির সমস্ত কিছু পরিদর্শন করে শিক্ষা দপ্তরকে রিপোর্ট পাঠায়। আর তারপরেই শিক্ষাদপ্তর ছাড়পত্র দিলেই চালু হয় সেই স্কুল। কিন্তু এবারে আর এই পদ্ধতিতে হাঁটতে চাইছে না রাজ্য।

সম্প্রতি ইসলামপুরকে “ঈশ্বরপুর” করে দেওয়ার কান্ড থেকে শিক্ষা নিয়ে এবার কড়া অনুশাসনে বেসরকারি স্কুলগুলির ছাড়পত্রকে বাধতে চায় শিক্ষা দপ্তর। সূত্রের খবর, বুধবার এক অনুষ্ঠানের শেষে শিক্ষামন্ত্রীকে এই ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “স্কুল চালাতে গেলে কিংবা উচ্চপ্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের অধীনে রূপান্তর করার জন্য প্রশাসনিক ছাড়পত্রের প্রয়োজন রয়েছে। তাই এর জন্য কড়া আইন আনা হবে।”

পাশাপাশি ইসলামপুরের এই ঘটনায় ঠিক কে বা কারা বোর্ডে ঈশ্বরপুর নামকে লাগিয়ে দিল তার খোঁজ যে শুরু করেছে শিক্ষা দপ্তর এদিন তাও স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেন শিক্ষামন্ত্রী। অন্যদিকে এদিনের অনুষ্ঠান থেকে রাজ্যের উত্তর 24 পরগনা ও নদিয়ায় আরও দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কথা ঘোষণা করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

বিগত বছর গুলিতে যেভাবে রাজ্যের মেধা বাইরে পাড়ি দিত বর্তমান রাজ্য সরকারের আমলে অন্য রাজ্য থেকেই প্রায় 18 হাজার ছাত্রছাত্রী এখানে পড়তে আসে বলেও এদিন দাবি করেন শিক্ষামন্ত্রী। আর শিক্ষামন্ত্রীর এই দাবির পেছনে যে প্রচুর মিল রয়েছে তা যাদবপুরের ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ভর্তির তথ্য দেখলেই পরিষ্কার হয়ে যাবে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

জানা গেছে, যাদবপুরের ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে 16 টি বিভাগের মধ্যে 11 টিতেই 50 শতাংশের বেশি ভিন রাজ্যের পড়ুয়া ভর্তি হয়েছেন। সব মিলিয়ে একদিকে রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থায় মানোন্নয়ন আর অন্যদিকে ইসলামপুর কান্ড থেকে শিক্ষা নিয়ে বেসরকারি স্কুলগুলিতে রাশ টানার চেষ্টায় এবার উদ্যোগী হলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!