এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > এবার ছাগল চুরিতেও শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে! তীব্র অস্বস্তিতে নেতারা

এবার ছাগল চুরিতেও শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে! তীব্র অস্বস্তিতে নেতারা

Priyo Bandhu Media


রাজ্যে বর্তমানে এমন একটা পরিস্থিতি যে, জুতো সেলাই থেকে চণ্ডীপাঠ প্রায় সব ব্যাপারেই শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব যেন লেগেই আছে। এবারে সামান্য ছাগল চুরির ঘটনায় প্রবল দ্বন্দ্বে জড়ালো তৃণমূলের দুই গোষ্ঠী। সূত্রের খবর, সম্প্রতি আঁধারিয়া গ্রামে তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি নিরঞ্জন দাসের ছায়াসঙ্গী বলে পরিচিত তৃণমূল কর্মী বিকাশ নায়েকের একটি ছাগল চুরিকে কেন্দ্র করে তীব্র উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা।

অভিযোগ, তপসিয়া পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্য ভবেশ পানির ঘনিষ্ঠ তৃণমূল কর্মী সুরজিৎ জানাই এই বিকাশ নায়েকের ছাগল চুরি করে নিয়েছেন। আর এরপরই অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ এ দু’পক্ষের মধ্যে গত সোমবার প্রবল সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। আর এই ঘটনায় বিকাশ নায়েকের মাথা ফাটার পাশাপাশি সেই সুরজিৎ জানার স্ত্রী দেবযানী জানা সহ দুই পক্ষের মোট 5 জন ব্যক্তি গুরুতর আহত হন। আর এই বিকাশ রায় আহত হওয়ার পরই দোষীদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে ফেকো এলাকায় ছয় নম্বর জাতীয় সড়ক মুম্বই রোডে ঘন্টা দেড়েক অবরোধ করে প্রবল বিক্ষোভ দেখান তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি নিরঞ্জন দাসের অনুগামীরা।

আর এরপরই গ্রেপ্তার করা হয় সেই নিরঞ্জন দাসেরই বিরুদ্ধ গোষ্ঠী তৃনমূল সদস্য ভবেশ পানির অনুগামী বলে পরিচিত মানস বিশালকে। যানিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে পক্ষপাতদুষ্ট আচরণের অভিযোগ তুলেছেন সেই ভবেশ পানি।

সূত্রের খবর, প্রকৃত দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে এবং সেই ভবেশ পানির অনুগামী সুরজিৎ জানার স্ত্রী দেবযানী জানার উপর হামলার প্রতিবাদে শুক্রবার পাল্টা ফেকো- গোপীবল্লবপুর 5 নম্বর রাজ্য সড়ক অবরোধ করেন তৃণমূলের অঞ্চল সদস্য ভবেশ পানির গোষ্ঠী। তাদের অভিযোগ, বেলিয়াবেড়া ব্লক তৃণমূল সভাপতি কালিপদ সুরের অনুগামী হওয়ার সুবাদেই এই নিরঞ্জন দাসের ছায়াসঙ্গীদের গ্রেফতার করছে না পুলিশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে এই সমস্ত ঘটনা অস্বীকার করে সেই বেলিয়াবেড়া ব্লক তৃণমূল সভাপতি কালিপদ সুর বলেন, “ছাগলকে কেন্দ্র করে এটা গ্রাম্য বিবাদ। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই।” এদিকে ছাগল নিয়ে শাসকদলের দুই গোষ্ঠীর তরফে এহেন অভিযোগ পাল্টা অভিযোগে বিপর্যস্ত পুলিশ প্রশাসনও।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!