এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > গুজরাটে ২৬ আসন পেয়ে মোদী প্রধানমন্ত্রী, বাংলায় ৪২ পেলে “দিদি” হবেন না কেন? প্রশ্ন অভিষেকের

গুজরাটে ২৬ আসন পেয়ে মোদী প্রধানমন্ত্রী, বাংলায় ৪২ পেলে “দিদি” হবেন না কেন? প্রশ্ন অভিষেকের

লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে প্রায় প্রতি সভামঞ্চ থেকেই কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপির বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় আক্রমণ শানাতে দেখা যাচ্ছে তৃনমূল যুব কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। আর এবার গতকাল বর্ধমান পূর্ব লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুনীল মণ্ডলের সমর্থনে কাটোয়া পুরসভার গোবিন্দ ময়দানে এসে গেরুয়া শিবিরকে প্রবল ভাষায় বিঁধলেন তিনি। সূত্রের খবর, এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি এই মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ, বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়, সুভাষ মন্ডল সহ অন্যান্যরা।

আর এখানেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে তৃনমূলের যুবরাজ বলেন, “সারা দেশ আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকে তাকিয়ে আছে। গুজরাটের ২৬ টি আসনে জিতে যদি মোদী প্রধানমন্ত্রী হতে পারেন, তাহলে ৪২ টি আসনে জিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন না?” রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে যখন এবারে মোদী বিরোধী মুখ হিসাবে তুলে ধরে কেন্দ্রের নির্নায়ক শক্তি হতে চাইছে তৃনমূল, ঠিক তখনই ৪২ আসন দখল করে কোনোমতেই তৃনমূল কিছু করতে পারবে না বলে ঘাসফুল শিবিরকে খোঁচা দিতে দেখা গেছে বাংলার বিজেপি নেতাদের।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আর তাইতো এবার সেই ব্যাপারে পাল্টা মোদীর বিরুদ্ধেই প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞরা। এদিকে এদিনের সভা থেকে বিগত ৫ বছরে কেন্দ্রের মোদি সরকার কোনো কাজ করেনি বলে অভিযোগ তুলে যুব তৃনমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি বলেন, “আমি পুরানে পড়েছি মানুষকে যখনই কেউ ঠকায়, তখন সেই ব্যাক্তি ছদ্মবেশে আসে। ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী দেশকে লুটতে চৌকিদার সেজে এসেছেন। আগামীদিনে এই ছদ্মবেশী চৌকিদারকে কড়ায় গন্ডায় বুঝিয়ে দেবো।”

অন্যদিকে পেট্রোল, ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি নিয়েও এদিন কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে কটাক্ষ করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে আগামী ২৩ শে মের পর পর ভারতবর্ষের মাটিতে বিজেপিকে আর খুঁজে পাওয়া যাবে না বলেও জানান যুব তৃনমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সব মিলিয়ে এবার নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে ভারতবর্ষের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তুলে ধরে রাজ্য রাজনীতিতে শোরগোল তুলে দিলেন তৃনমূল যুবর সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও এর পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপির ছোট্ট প্রতিক্রিয়া, অভিষেক ব্যানার্জি বোধহয় ভুলে গিয়েছেন – বিজেপি তৃণমূলের মত আঞ্চলিক দল নয়! গুজরাটের ২৬ টির বাইরেও সারা ভারত থেকে বাকি আসন পেয়ে ২৭২ সংখ্যাটা পার করেছিল!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!