এখন পড়ছেন
হোম > খেলা > আগামী ৩ রা জুলাইতেই কি ঠিক হয়ে যাবে আই-লীগ ও আইএসএলের ভাগ্য?

আগামী ৩ রা জুলাইতেই কি ঠিক হয়ে যাবে আই-লীগ ও আইএসএলের ভাগ্য?

ভারতীয় ফুটবলের দিকনির্দেশনা সম্ভবত ঘটতে চলেছে আগামী ৩ রা জুলাই এআইএফএফের এক্সিকিউটিভ কমিটির মিটিংয়ে। এতদিন অর্থাৎ গত ৫ বছর ধরে যে আইএসএলকে নানা অছিলায় দেশের ১ নম্বর লিগ ঘোষণা করা থেকে রত থাকতে হয়েছে, এবার হয়ত সেই কঠিন সিদ্ধান্তটাই নিতে হবে এআইএফএফকে।

এফএসডিএল এবং আইএমজিআর চাপে অবশেষে নতিস্বীকার করতে চলেছে এআইএফএফ। আইএসএল-কে দেশের সর্বোচ্চ লিগের মর্যাদা দিতে চলেছে ভারতীয় ফুটবলের নিয়ামক সংস্থা বলেই সূত্রের খবর। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে শুরু হয়েছিল আইএসএল। মিলিয়ন ডলার এই ‘এক্সট্রাভাগানজাকে’ প্রথমে ‘টু্র্নামেন্ট’ বলা হলেও পরে ‘লিগ’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

আসলে এই লীগ নীতা অম্বানির স্বপ্নের প্রোজেক্ট। যদিও সবসময় আই লিগ ছিল দেশের শীর্ষ প্রতিযোগিতা। কিন্তু, চুক্তি অনুযায়ী ইন্ডিয়ান সুপার লিগকে ভারতীয় ফুটবলের সর্বোচ্চ লিগের শিরোপা দিতেই হত এক না একদিন । এই প্রসঙ্গে এআইএফএফ সচিব কুশল দাস জানিয়ে দেন, চুক্তিতেই বলা রয়েছে এ কথা। চুক্তিকে অগ্রাহ্য করা যায় না। এখন এক্সিকিউটিভ কমিটি সিদ্ধান্ত নেবে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

যে চুক্তির কথা কুশল দাস উল্লেখ করেছেন তা হল মাস্টার রাইটস এগ্রিমেন্ট (এমআরএ)। ২০১০ সালে আইএমজিআর এবং এআইএফএফ-এর মধ্যে এই চুক্তি সাক্ষরিত হয়। বর্তমানে এই চুক্তি রয়েছে এআইএফএফ এবং এফএসডিএলের মধ্যে। এই চুক্তিতে বলা রয়েছে যে লিগ নীতা আম্বানীর সংস্থা বানাবে সেটাকে দেশের সর্বোচ্চ লিগের মর্যাদা দিতে হবে।

এখন এআইএফএফ যদি চুক্তি অনুযায়ী আইএসএলকে সর্বোচ্চ লিগের মর্যাদা না দেয় তাহলে কয়েকশো কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা করতে পারে আইএমজিআর। তাহলে স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন, এই পরিস্থিতিতে কী হবে আই লিগের ক্লাবগুলির? এআইএফএফের এক আধিকারিক এক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এফএসডিএল জানিয়েছে আই লিগের রোড ম্যাপ তারাই জানাবে। আই লিগকে বাঁচাতে হলে এক্সিকিউটিভ কমিটির রায়ের বিরুদ্ধে আদালতে আবেদন করতে পারে ক্লাবগুলি।

তিনি আরও জানিয়েছেন, প্রয়োজনে আই লীগের ক্লাবগুলি আপিল করত পারে কোর্ট অব আরবিট্রশন ফর স্পোর্টসে। এদিকে সূত্রের খবর, আইএসএলকে লিগা ওয়ান বানিয়ে, দ্বিতীয় সারিতে নামিয়ে দেওয়া হবে আই লিগকে। সুযোগ থাকবে না এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ প্লে-অফ বা এএফসি কাপে খেলারও। আইএসএল-এর চ্যাম্পিয়ন দলই খেলার সুযোগ পাবে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ প্লে-অফে। সুপারে কাপের বিজয়ী দল খেলবে এএফসি কাপ। সবমিলিয়ে নতুন মোড়ের সামনে দাঁড়িয়ে ভারতীয় ফুটবল বলেই মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!