এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > আদালতের কোন কোন প্রশ্নবানে দিশেহারা কমিশন? কি হতে চলেছে ১৬ তারিখ?

আদালতের কোন কোন প্রশ্নবানে দিশেহারা কমিশন? কি হতে চলেছে ১৬ তারিখ?

রাজ্যে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচন ক্রমশ জটিল হচ্ছে মামলার জটে। আজ বিরোধীদের করা মামলায় রাজ্য নির্বাচন কমিশনের ভূমিকায় চূড়ান্ত অসন্তুষ্ট হাইকোর্ট। ফলে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রক্রিয়া আপাতত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। নির্বাচনী প্রক্রিয়া চালাতে কমিশন ব্যর্থ হয়েছে বলেও আদালত অভিমত পোষন করে। আদালতের প্রশ্নবানের সামনে কার্যত দিশেহারা লাগে কমিশন সচিব নীলাঞ্জন শান্ডিল্যকে। বিচারপতি সুব্রত তালুকদার রাজ্য নির্বাচন কমিশনের কাছে জানতে চান –

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

১. পঞ্চায়েত নির্বাচনের মনোনয়ন পেশের জন্য বিঞ্জপ্তি জারি হওয়ার পর থেকে ঠিক কটি অভিযোগ কমিশনে জমা পড়েছে এবং কটির ক্ষেত্রে তা সমাধান হয়েছে?
২. সুপ্রিম কোর্ট এবং হাইকোর্টে একইসঙ্গে মামলা হওয়ার পর ১০ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিলের মধ্যে কমিশন ঠিক কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে?
৩. ৯ এপ্রিল মনোনয়ন পেশের সময়সীমা শেষ হবার পর রাতে ফের বিঞ্জপ্তি দিয়ে মনোনয়ন পেশের সময়সীমা বাড়ানোর পর, কটি মনোনয়ন জমা পড়েছে ১০ তারিখ বিকেল ৩টে পর্যন্ত?
৪. হাইকোর্ট ১০ তারিখ, মঙ্গলবার, মনোনয়নের মেয়াদ বৃদ্ধির বিঞ্জপ্তি বাতিলের ওপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দেওয়ার পর কমিশন কীভাবে তা সামাল দিচ্ছে?

কোনো প্রশ্নেরই সঠিক জবাব কমিশন এদিন জানাতে পারেনি। উল্টে, নীলাঞ্জনবাবু জানান, যত অভিযোগ জমা পড়েছে সবগুলোই খতিয়ে দেখে কমিশন ব্যবস্থা নিয়েছে। বর্তমানে মনোনয়নগুলির স্ক্রুটিনি চলছে, ১৬ তারিখে পরিষ্কার হবে কোন কোন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন। তখনই বিচারপতি তালুকদার ক্ষুব্ধ হয়ে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রক্রিয়া আপাতত বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন এবং আগামী ১৬ তারিখ উপরের প্রশ্নগুলির বিস্তারিত তথ্য সমেত স্ট্যাটাস রিপোর্ট জমা দিতে নির্দেশ দেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!