এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > হেভিওয়েট সাংসদ ও প্রাক্তন বাম বিধায়কের তৃণমূলে যোগদানের জল্পনা ঘিরে তীব্র উৎসাহ শাসকদলের অন্দরে

হেভিওয়েট সাংসদ ও প্রাক্তন বাম বিধায়কের তৃণমূলে যোগদানের জল্পনা ঘিরে তীব্র উৎসাহ শাসকদলের অন্দরে

Priyo Bandhu Media

একতা কংগ্রেস গড় হিসেবে পরিচিত মালদা জেলা বর্তমানে তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে গড়ে উঠেছে। জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক হিসেবে শুভেন্দু অধিকারী দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন বিরোধী দলের নেতারা যোগ দিয়েছে শাসক শিবিরে। এমনকী সম্প্রতি উত্তর মালদহের এক বিরোধী সংসদ সদস্যেরও সেই শাসক দলের ছাতার তলায় আশার গুঞ্জন রটেছিল।

আর সেই গুঞ্জনের মাঝেই এবার সেই মালদহেরই প্রাক্তন আরএসপি বিধায়ক আব্দুর রহিম বক্সীর তৃণমূলে যোগদানের সম্ভাবনার খবর চাউর হতে না হতেই তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। কিন্তু হঠাৎ এই রকম সম্ভাবনার খবর ছড়াল কেন?

সূত্রের খবর, সম্প্রতি শীতের পোশাকে শাসক দলের এক দাপুটে নেতার সঙ্গে এই মালদহের আরএসপির প্রাক্তন বিধায়ক রহিম বক্সীর একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। আর যে ছবিকে ঘিরে এখন জোর চর্চা শুরু হয়েছে জেলার রাজনৈতিক মহলের অন্দরে।

 

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অনেকে বলছেন, ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে তোলা এই ছবিতে আরএসপির এই প্রাক্তন বিধায়ক দাপুটে তৃণমূল নেতার সঙ্গে একটি বৈঠকও করেছেন। আর এই ঘটনায় লোকসভা ভোটের আগে কিছুটা হলেও চাঙ্গা হয়ে উঠেছে মালদহের শাসক শিবির। প্রসঙ্গত, দক্ষিণ মালদহে তৃণমূলের অবস্থান ভালো হলেও উত্তর মালদহে তাঁদের ভিত কিছুটা হলেও নড়বড়ে।

আর এইখানেই রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ধারণা, উত্তর মালদহ থেকে এই বিরোধী দলের বিধায়করা হাত যদি শাসক দলে যোগ দেয় তাহলে লোকসভা ভোটের আগে সেই উত্তর মালদহ নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামাতে হবে না তৃণমূলকে। কিন্তু সত্যিই কি আরএসপির এই প্রাক্তন বিধায়ক রহিম বক্সী তৃণমূলে যোগদান করছেন?

এদিন এই প্রসঙ্গে মালদহ জেলা তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি দুলাল সরকার বলেন, “এখনও যারা অন্য দলে আছেন কিন্তু মানুষের জন্য কাজ করতে চান তাঁদের অনেকেই আমাদের দলে আসতে চাইছেন। আমি নির্দিষ্টভাবে কারও নাম করছি না। তবে এটুকু বলতে পারি মালতিপুরের প্রাক্তন আরএসপি বিধায়ক রহিম বক্সি মানুষের জন্যই কাজ করেন।”

আর এইখানেই জল্পনা ছড়িয়েছে যে, জেলায় এত বিরোধী নেতা-নেত্রী থাকতে কেন নির্দিষ্টভাবে সেই রহিম বক্সিরই নাম নিলেন জেলা তৃণমূলের এই কার্যকরী সভাপতি? সত্যিই কি তাহলে তিনি দলবদল করছেন? এদিন এই প্রসঙ্গে মালদহ জেলার আরএসপি সম্পাদক সর্বানন্দ পান্ডে বলেন, “উনি আমাদের দলের দায়িত্বশীল নেতা এবং সংগঠক। অন্য কোনো দলে তিনি যাচ্ছেন বলে আমরা শুনিনি।”

তবে যাঁকে নিয়ে এত কিছু সেই মালতিপুরের প্রাক্তন আরএসপি বিধায়ক রহিম বক্সি অবশ্য তাঁর দলবদলের সমস্ত জল্পনাকে উড়িয়ে দিয়েছেন। এদিন তিনি বলেন, “আমি আরএসপিতে ছিলাম আর সেখানেই আছি। সোশ্যাল মিডিয়ায় তৃণমূলের এক শীর্ষ নেতার সঙ্গে আমার ছবি নিয়ে কেউ কেউ অপপ্রচার করছেন। আমি যখন বিধায়ক ছিলাম তখনই ওই নেতার সঙ্গে আমার এই ছবি তোলা হয়েছে।”

সব মিলিয়ে এবার দাপুটে তৃণমূল নেতার সঙ্গে মালদহের আরএসপির প্রাক্তন বিধায়কের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ায় দলবদলের জল্পনা তীব্র হয়ে উঠতে শুরু করেছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!