এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতাদের বিরুদ্ধে এবার খুনের আশঙ্কা প্রকাশ করে ভিডিও প্রকাশ আর এক তৃণমূল হেভিওয়েট নেতার

তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতাদের বিরুদ্ধে এবার খুনের আশঙ্কা প্রকাশ করে ভিডিও প্রকাশ আর এক তৃণমূল হেভিওয়েট নেতার

Priyo Bandhu Media

 

কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটিতে যখন ঘাসফুল ফোটানোর জন্য প্রবল লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী, ঠিক তখনই বহরমপুরের দুই তৃণমূল নেতার দ্বন্দ্ব যেন ঘাসফুল শিবিরকে অনেকটাই পিছিয়ে দিতে শুরু করল। রাজনৈতিক মহলের তরফে এখন এমনটাই দাবি করা হচ্ছে।

একদিকে বহরমপুরের প্রাক্তন পুরপ্রধান নীলরতন আঢ্য, অন্যদিকে বহরমপুর শহর তৃণমূল সভাপতি নাড়ুগোপাল মুখোপাধ্যায়। দুই তৃণমূলের দ্বন্দ্ব এখন সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল হয়ে যাওয়ায় বিরোধীরা তাদের হাতে নতুন অস্ত্র পেয়ে গিয়েছে। নীলরতনবাবু বনাম নাড়ুগোপালবাবুর বচসা এখন কার্যত আর দুই তৃণমূল নেতার বচসা মনে হচ্ছে না। মনে হচ্ছে, যেন একে অপরের বিরোধী দুই রাজনৈতিক দলের বচসা।

জানা গেছে, ইতিমধ্যেই বহরমপুর শহর তৃণমূল সভাপতি নাড়ুগোপাল মুখোপাধ্যায় বহরমপুর পৌরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান তৃণমূলের নীলরতন আঢ্যর বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়া একটি বিস্ফোরক ভিডিও পোস্ট করেছেন। যেখানে তিনি বলেছেন, “প্রাক্তন পৌরপ্রধানের মনে হয়েছে, তিনি যে মৌরসীপাট্টা চালাতেন, আমার কারনে তাতে ভাটা পড়েছে। তাই নীলরতন এবং তার জামাই আমাকে খুন করার ষড়যন্ত্র করছেন। নীলরতন আঢ্য শহরবাসীর নয়, তার মেয়ে-জামাইয়ের চেয়ারম্যান ছিলেন। পুরসভা থেকে তার মেয়ে-জামাইয়ের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাকে সুবিধা পাইয়ে দিয়েছেন। কোটি কোটি টাকা তছরুপ করেছেন।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর প্রাক্তন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দলের শহর সভাপতির এহেন বিস্ফোরক মন্তব্যে এখন তোলপাড় হয়ে উঠেছে বহরামপুরে শাসকদলের অন্দরমহল। এদিন নাড়ুগোপাল মুখোপাধ্যায়ের এহেন মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিয়েছেন বহরমপুরের প্রাক্তন পৌরপ্রধান নীলরতন আঢ্য। তিনি বলেন, “নাড়ুর কথা শুনে মনে হচ্ছে, ওর মতিভ্রম হয়েছে। খুন করার লোক যে আমরা নই, সেটা বহরমপুরবাসী জানেন।”

কিন্তু তার বিরুদ্ধে নাড়ুগোপাল বাবু যে দুর্নীতির অভিযোগ তুলছেন, তার কি সত্যতা রয়েছে! এদিন এই প্রসঙ্গে নীলরতন আঢ্য বলেন, “নাড়ুগোপাল কি সতী? তদন্ত হোক। কে দুর্নীতি করছে, তা পরিষ্কার হয়ে যাবে।” সব মিলিয়ে একে অপরের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করে এখন তৃণমূলের অস্বস্তিকে প্রবল পরিমাণে বাড়িয়ে দিলেন বহরমপুর শহরের দুই হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা নীলরতন আঢ্য এবং নাড়ুগোপাল মুখোপাধ্যায় বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। এখন এই দুই নেতার দ্বন্দ্ব মেটাতে তৃণমূল ঠিক কি পদক্ষেপ গ্রহণ করে, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!