এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > চিটফান্ড কাণ্ডে নামী সাংবাদিক গ্রেপ্তার হতেই সামনে বিস্ফোরক তথ্য, শীঘ্রই সিবিআইয়ের সামনে প্রভাবশালী নেতার ছেলে?

চিটফান্ড কাণ্ডে নামী সাংবাদিক গ্রেপ্তার হতেই সামনে বিস্ফোরক তথ্য, শীঘ্রই সিবিআইয়ের সামনে প্রভাবশালী নেতার ছেলে?


জল্পনা ছিল যে যত লোকসভা নির্বাচন এগিয়ে আসবে – রাজ্যে চিটফান্ড কেলেঙ্কারির তদন্তে ততই গতি বাড়াবে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই। এমনকি, তদন্তের স্বার্থে বহু প্রভাবশালীকে জিজ্ঞাসাবাদের পাশাপাশি গ্রেপ্তারও করা হতে পারে। আর এবার চিটফান্ড কাণ্ডে, সিবিআইয়ের হাতে গতকাল গ্রেপ্তার হলেন কলকাতার বিশিষ্ট সাংবাদিক ও নামী সংবাদপত্রের এডিটর সুমন চট্টোপাধ্যায়।

আর সুমনবাবুর গ্রেপ্তারির পরেই তীব্র জল্পনা ছড়িয়েছে কলকাতার এক প্রভাবশালীর নেতার ছেলেকে ঘিরে। সূত্রের খবর, যে বেআইনি অর্থলগ্নীকারি সংস্থার সাহায্য নিয়ে সুমনবাবু একটি সংবাদপত্র চালিয়েছিলেন এবং সেখানে আর্থিক দুর্নীতি হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে – সেই সংস্থার অন্যান্য ব্যবসাও ছিল। সেই সকল ব্যবসার মধ্যে অন্যতম ছিল ওষুধের ব্যবসা।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর এই ওষুধের ব্যবসার জন্য যে কোম্পানি – সেই কোম্পানির অন্যতম ডিরেক্টর ছিলেন ওই প্রভাবশালী নেতার পুত্র। এর আগে যখন এই সংস্থার কর্ণধার গ্রেপ্তার হন – তখনই ওই প্রভাবশালী নেতার পুত্রের কথা উঠে আসে। এমনকি রাজ্যের একটি সংস্থার তদন্তে তাঁর নাম উঠে এলে তা নাকি উহ্য রাখা হয়। কিন্তু, এবার সিবিআইয়ের হাতে ওনার বিরুদ্ধে নাকি বেশ কিছু প্রমান এসেছে।

সূত্রের খবর, এই বেআইনি অর্থলগ্নীকারি সংস্থার ওষুধের যে কোম্পানি – যেখানে ডিরেক্টর হিসাবে ছিলেন ওই প্রভাবশালী নেতার পুত্র, তিনি নাকি ২০১০ থেকে ২০১৩ সালের মধ্যে প্রায় ২ কোটি টাকা ওই কোম্পানি থেকে সরিয়েছিলেন। আর খুব শীঘ্রই এর পরিপ্রেক্ষিতে সিবিআই তাঁকে জেরার জন্য ডাকতে চলেছে। প্রসঙ্গত, ওই প্রভাবশালী নেতার নাম ইতিমধ্যেই অন্য একটি চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছিল। সব মিলিয়ে নামী সাংবাদিক গ্রেপ্তার হতেই নতুন করে গতি পেল সিবিআই তদন্ত বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!