এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কংগ্রেসের দায়িত্ব মমতা ব্যানার্জিকে দেওয়া হোক – হেভিওয়েট নেতার দাবি ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য

কংগ্রেসের দায়িত্ব মমতা ব্যানার্জিকে দেওয়া হোক – হেভিওয়েট নেতার দাবি ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য

ফের বিস্ফোরক মন্তব্য করে জাতীয় রাজনীতিতে শোরগোল তুললেন বিজেপি নেতা সুব্রামানিয়াম স্বামী। এবার দেশের গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করতে সংযুক্ত কংগ্রেসের দায়িত্ব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেওয়ার কথা বললেন তিনি। যা নিয়ে তোলপাড় এখন জাতীয় রাজনীতি। প্রসঙ্গত, বর্তমানে গোয়ায় কংগ্রেসের 15 বিধায়কের মধ্যে 10 জন বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন এবং কর্নাটকে 12 জন বিধায়ক ইস্তফা দিয়ে দিয়েছেন।

আর এই পরিস্থিতিতে কার্যত কংগ্রেস অস্তিত্ব সংকটের দিকে এগোচ্ছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। শুধু তাই নয়, লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেস এবং এনসিপি খুব একটা ভালো ফল করেনি – ফলে কংগ্রেস ও এনসিপির মিশে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরী হয়েছে। আর সেদিক থেকে তৃণমূল খুব একটা ভালো ফল না করলেও বিজেপির সঙ্গে সমানে লড়াই দিয়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আর তাই এই কংগ্রেস, এনসিপি এবং তৃণমূলকে একসাথে করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তার নেতৃত্বে রাখার কথা বললেন সুব্রামানিয়াম স্বামী। সূত্রের খবর, এদিন টুইটে কংগ্রেসকে উদ্দেশ্য করে এই বিজেপি নেতা লেখেন, “গোয়া এবং কাশ্মীরের অবস্থা দেখার পর আমার মনে হয়েছে বিজেপি যদি একমাত্র দল হয়ে ওঠে, তাহলে দেশের গণতন্ত্র দুর্বল হয়ে পড়বে। ইতালিয়দের দেশ ছাড়তে বলুন। আর এর পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সংযুক্ত কংগ্রেসের সভাপতি করা উচিত।”

আর এই প্রসঙ্গেই তিনি, কংগ্রেসের সাথে এনসিপি ও তৃণমূলের মিশে যাওয়ার পরামর্শ দেন। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, সুব্রামানিয়াম স্বামী এ যেন এক ঢিলে দুই পাখি মারার চেষ্টা করলেন। একদিকে বিজেপির শক্তিশালী হওয়ার কথা বলে যেমন গেরুয়া শিবিরকে সবার উপরে তুলে ধরার চেষ্টা করলেন তিনি, ঠিক তেমনই কংগ্রেস, এনসিপি এবং তৃণমূলকে সংযুক্ত হয়ে তার নেতৃত্বে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে থাকার কথা বলে বিরোধীদেরকেও কার্যত ঠেস দিলেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!