এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের ঘর ওয়াপসি রাজ্যে! কর্মীদের উজ্জীবিত করার বার্তা হেভিওয়েট মন্ত্রীর

ফের ঘর ওয়াপসি রাজ্যে! কর্মীদের উজ্জীবিত করার বার্তা হেভিওয়েট মন্ত্রীর


লোকসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 42 এ 42 এর ডাক দিয়েছিলেন। কিন্তু তার শ্লোগান পরিপূর্ণতা পায়নি। উল্টে বিজেপি বাংলা থেকে 18 টা আসন দখল করে 22 টি আসন পাওয়া তৃণমূলের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে। যা তৃনমূলের প্রবল অস্বস্তি বাড়িয়েছে। কেননা লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপির উত্থান ঘটার পরেই দিকে দিকে বিভিন্ন পৌরসভার কাউন্সিলর, বিভিন্ন বিধানসভার বিধায়ক এবং তৃণমূলের অনেক হেভিওয়েট নেতারা গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে শুরু করেন।

বঙ্গ বিজেপির চাণক্য মুকুল রায় ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন, এই দলবদলের পালা চলবে এবং তৃণমূল ছেড়ে প্রায় সকলেই বিজেপিতে যোগদান করবে। কিন্তু উত্তর 24 পরগনার যে সমস্ত পৌরসভা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি দখলে গিয়েছিল, কয়েক দিন যেতে না যেতেই সেই সমস্ত পৌরসভার কাউন্সিলররা ফের তৃণমূলে ফিরে আসতে শুরু করেছে।

আর এতেই এবার বিজেপির উপর চাপ সৃষ্টি করে নিজেদের দলের কর্মীদের উজ্জীবিত করার চেষ্টা করছে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। সূত্রের খবর, শুক্রবার পূর্ব বর্ধমানের দক্ষিণ দামোদরের সগড়াই থেকে সেহারাবাজার পর্যন্ত আগামী 21 শে জুলাই শহীদ সমাবেশ উপলক্ষে একটি জনসংযোগ পদযাত্রায় সামিল হন রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।



WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।




আপনার মতামত জানান -

যেখানে উপস্থিত ছিলেন, জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ, জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধাড়া, সহকারী সভাধিপতি দেবু টুডু সহ জেলা নেতৃত্বরা। এদিন তৃণমূলের এই জনসংযোগ যাত্রা শুরু হওয়ার সাথে সাথেই প্রবল বৃষ্টিপাত শুরু হয়।

কিন্তু সেই বৃষ্টিকে উপেক্ষা করেই তৃণমূল নেতৃত্বরা পদযাত্রায় সামিল হন। আর এই জনসংযোগ যাত্রা শেষে বক্তব্য রাখতে গিয়ে যে সমস্ত কাউন্সিলার তৃণমূল থেকে বিজেপিতে চলে গিয়েছে, তারা আবার তৃনমূলে ফিরে আসছে এই কথা তুলে ধরেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেন, “যারা গিয়েছিল তারা একের পর এক তৃণমূলে ফিরে আসছে। বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে নতুন করে জেগে উঠছে তৃণমূল কংগ্রেস।”

অন্যদিকে তৃণমূল কর্মীদের অভয় দিয়ে জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ বলেন, “দক্ষিণ দামোদরের রায়না ও খণ্ডঘোষ বিধানসভায় আমরা জয়ী হয়েছি। তাই কর্মীদেরকে বলছি, আশঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই।” রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, লোকসভা নির্বাচনের পর যেভাবে বিভিন্ন পৌরসভা, পঞ্চায়েত, এমনকি জেলা পরিষদ থেকেও তৃণমূলের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা বিজেপিতে যেতে শুরু করেছিল, তাতে কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে পড়ে গিয়েছিল শাসক দল।

কিন্তু আবার সেই সমস্ত দলবদলকারীরা তৃণমূলে ফিরে আসায় এখন কিছুটা হলেও উজ্জীবিত ঘাসফুল শিবির। আর তাই কর্মীদের কাছে সেই সমস্ত কথা তুলে ধরে দলের কর্মীদের চাঙ্গা করার করতে মরিয়া তৃণমূল নেতারা বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!