এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > দীর্ঘদিন পর হেভিওয়েট নেতাকে হাতের কাছে পেয়ে চেপে ধরতে প্রস্তুত তৃণমূলের অন্যান্য নেতারা

দীর্ঘদিন পর হেভিওয়েট নেতাকে হাতের কাছে পেয়ে চেপে ধরতে প্রস্তুত তৃণমূলের অন্যান্য নেতারা


 

মালদহে তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ সমস্যা কিছুতেই মিটছে না। প্রথমে ইংরেজবাজার পৌরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কাউন্সিলরদের একাংশের অনাস্থা প্রবল অস্বস্তিতে ফেলেছিল ঘাসফুল শিবিরকে। পরে অবশ্য রাজ্য নেতৃত্বে হস্তক্ষেপে সেই সমস্যা কিছুটা মিটলেও ফের আশঙ্কা এবং জটিলতা দেখা দিতে শুরু করল।

সূত্রের খবর, দীর্ঘদিন পর সোমবার সিআইসির বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ইংলিশবাজার পৌরসভায়। যে বৈঠকে উপস্থিত পৌরসভার চেয়ারম্যান নীহাররঞ্জন ঘোষকে চেপে ধরার পরিকল্পনা করেছেন তৃণমূলের অন্যান্য কাউন্সিলররা। ইতিমধ্যেই তার বেশ কিছু আভাসও পাওয়া গেছে। তাই কি হয় আজকের ইংলিশবাজার পৌরসভার এই সিআইসি বৈঠকে, সেদিকেই নজর রয়েছে সকলের।

এদিন এই প্রসঙ্গে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সিআইসি সদস্য বলেন, “নিকাশি এবং জঞ্জাল সমস্যায় শহরবাসী নাজেহাল- হয়ে পড়েছে। ওয়ার্ডের ভিতরকার রাস্তাঘাটের অবস্থা ভালো নয়। মহানন্দা সেতু, উড়ালপুল, জাতীয় সড়কের একাংশ অন্ধকারে ঢাকা। মানুষ ঠিকমত পথ চলতে পারেন না। এতদিন ধরে কোনো বৈঠক না হওয়ায় চেয়ারম্যানকে অফিশিয়ালি বলা সম্ভব হয়নি। আমি তাকে জানানোর চেষ্টা করলেও উনি গুরুত্ব দেননি।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এবার সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে হবে। চেয়ারম্যানকে ছেড়ে দেওয়া যাবে না।” একইভাবে আজকের এই বৈঠকে চেয়ারম্যানকে যে তারা ছেড়ে দেবেন না, সেই আভাস শোনা গেছে এই পৌরসভার চেয়ারম্যান বাবলা সরকারের গলাতেও। তিনি বলেন, “আমার ওয়ার্ডে পুরো পরিষেবা নিয়ে বেশ কিছু সমস্যা স্থায়ীভাবে রয়ে গিয়েছে। বারবার বলা সত্ত্বেও চেয়ারম্যান সেই সমস্যার সমাধান করেননি। যার ফলে ওয়ার্ডের বাসিন্দারা চরম কষ্টে রয়েছেন। আমি তাদের সামনে দাঁড়াতে পারি না। এইসব সমস্যার কথা সিআইসি বৈঠকে তুলে ধরব। আশা করি চেয়ারম্যান সেসব সমাধানে উদ্যোগী হবেন।”

বিশ্লেষকরা বলছেন, ইংলিশবাজার পৌরসভায় চেয়ারম্যান নীহার ঘোষকে তার পদ থেকে সরাতে দলের কাউন্সিলরদের একাংশ তৎপর হলেও দলের কঠোর পদক্ষেপে তা সম্ভব হয়নি। তবে সিআইসি বৈঠকে চেয়ারম্যানকে প্রশ্নবাণে বিদ্ধ করতে তৎপর অনেক সদস্যই। যার ফলে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল আরও একধাপ বাড়বে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু তিনি কিভাবে এই প্রশ্ন সামলাবেন!

এদিন এই প্রসঙ্গে ইংরেজবাজার পৌরসভার চেয়ারম্যান নীহার রঞ্জন ঘোষ বলেন, “আমরা সম্প্রতি বেশ কয়েক লক্ষ টাকা ব্যয়ে নিকাশি নালা সংস্কার করেছি। বেশিরভাগ রাস্তায় এখন ঝা চকচকে। তারপরেও কাউন্সিলররা নিজের নিজের ওয়ার্ডের সমস্যার কথা আমাকে জানাতে পারেন। সেটা তাদের অধিকার। কিন্তু তাই বলে দায় এড়াতে পারেন না। শহরবাসীকে সুষ্ঠু পরিষেবা দেওয়ার দায়িত্ব তাদেরও রয়েছে।” আর সিআইসি বৈঠকে যদি সিআইসি সদস্য বনাম চেয়ারম্যানের মধ্যে এই তরজা চলতে থাকে, তাহলে তা ভয়ঙ্কর আকার নেবে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের। এখন কি হয় আজকের এই বৈঠকে, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!