এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > শীর্ষনেত্রীর সঙ্গে বৈঠকে এড়ালেন হেভিওয়েট নেতা! ক্রমশ বাড়ছে জল্পনা

শীর্ষনেত্রীর সঙ্গে বৈঠকে এড়ালেন হেভিওয়েট নেতা! ক্রমশ বাড়ছে জল্পনা

রাজনীতিতে নানা সময় নানা ঘটনা মাঝেমধ্যেই দলবদলের জল্পনাকে উসকে দেয়। কখনও তা অস্বস্তির হয় শাসকের ক্ষেত্রে, আবার কখনও তা অস্বস্তির হয়ে দাঁড়ায় বিরোধীদের ক্ষেত্রে। বর্তমানে মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেসের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে। তবে এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের মাঝেই এবার প্রবল রহস্য দানা বাধতে শুরু করল। জানা যায়, গত সোমবারই কংগ্রেসের জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল যে, মঙ্গলবার কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে তার বৈঠক হবে।

কিন্তু এদিন সেই বৈঠকের ব্যাপারে কোনো কিছু দেখা না যাওয়ায় এমন কোনো বৈঠক হওয়ার কথা ছিল না বলে প্রকাশ্যেই জানিয়ে দিলেন সেই জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। শুধুমাত্র তাকে মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনের জন্য সেখানকার স্ক্রিনিং কমিটির প্রধান করায় এদিন এই প্রসঙ্গেই বক্তব্য দিতে শোনা গেল সেই জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে। এদিন তিনি বলেন, “আমার এখন নজর মহারাষ্ট্রের নির্বাচনে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

কিন্তু জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া মুখে যাই বলুন না কেন, তিনিই যে মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেসের প্রদেশ সভাপতির পদে বসতে চাইছেন তা বুঝতে বাকি নেই কারোরই। বস্তুত, এখন এই মধ্যপ্রদেশে মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির পদের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন কমলনাথ।

ইতিমধ্যেই সেখানকার এক মন্ত্রী অভিযোগ করেছেন যে, কমলনাথ মুখ্যমন্ত্রী থাকলেও দিগ্বিজয় সিংহই এই সরকার চালাচ্ছেন। তবে সেই কমলনাথের সঙ্গে সোনিয়া গান্ধী বৈঠক করলেও জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার সঙ্গে তার এখনও বৈঠক হয়নি। তবে এদিন সিন্ধিয়ার সঙ্গে কংগ্রেস সভানেত্রী বৈঠক না করলেও 10 জনপথে সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে বৈঠক করতে দেখা গেছে এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ারকে। আর এইসব নিয়েই এখন তৈরি হয়েছে প্রবল জল্পনা।

অনেকে বলছেন, কর্নাটকে ইতিমধ্যেই বিজেপি ক্ষমতা দখল করেছে। আর এবার তাদের প্রধান টার্গেট মধ্যপ্রদেশ। আর সেই মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেসের জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার মত নেতাকে নিজেদের শিবিরে আনা গেলে বিজেপির লক্ষ যে অনেকটাই পূরণ হবে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত গেরুয়া শিবির।

আর তাই প্রথমে সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে তার বৈঠক হবে বলে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার শিবিরের পক্ষ থেকে জানানো হলেও পরে সেই বৈঠকের ব্যাপারে কোনো কিছু দেখা না যাওয়ায় এবং তার সঙ্গে সোনিয়া গান্ধীর কোনো বৈঠকের ঠিক ছিল না বলে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া জানানোয় গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে কি তাহলে সিন্ধিয়ার যোগাযোগ শুরু হয়েছে! তা নিয়েই এবার রাজনৈতিক মহলে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!