এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়াকে চ্যালেঞ্জ করে আদালতে মামলা, ঝুলে রইল চাকরিপ্রার্থীদের ভবিষ্যৎ

গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়াকে চ্যালেঞ্জ করে আদালতে মামলা, ঝুলে রইল চাকরিপ্রার্থীদের ভবিষ্যৎ

অবশেষে রাজ্যের শীর্ষ আদালতে গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে মামলা হল। প্রসঙ্গত, চলতি বছরের 28 শে সেপ্টেম্বর এই গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়ায় একটি বিজ্ঞাপন প্রকাশিত হয়। যেখানে বর্তমান শূন্যপদের সংখ্যা 221 দেখিয়ে একটি বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়। আর এরপরই এই ঘটনায় এই গোটা নিয়োগ প্রক্রিয়াকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা করেন রিয়া দাশ নামে এক মহিলা।

আর এরপরই সেই রিয়া দেবীর আইনজীবী সৌমেন দত্ত আদালতে অভিযোগ করেন, ‘1976 সালের রাজ্য সংরক্ষণ আইনকে লংঘন করে তপশিলি জাতি ও উপজাতি প্রার্থীদের কাছ থেকে পরীক্ষার ফি নেওয়া হয়েছে।’ এমনকী স্নাতকদের প্রার্থী হতে বিধিনিষেধ এবং ইন্টারভিউয়ের জন্য ঠিক কত নম্বর থাকবে সেই বিষয়েও বিস্তারিত জানানো হয়নি বলে অভিযোগ করেন তিনি।

পাশাপাশি জাতীয় স্তরের দুটি গুরুত্বপূর্ণ সংবাদপত্রে এই গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগের কোনোরূপ বিজ্ঞাপন প্রকাশিত হয়নি বলেও এদিন জানান রিয়া দাসের আইনজীবী সৌমেন দত্ত। আর এরপরেই পাল্টা হাইকোর্টের প্রশাসনের তরফ থেকে আইনজীবী জয়দীপ কর বিজ্ঞাপন প্রকাশিত হয়েছে এমন বেশ কিছু সংবাদপত্র পেশ করেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

যেখানে জয়দীপ বাবু বলেন, যে, “প্রতিটি অভিযোগ বা প্রশ্নেরই জবাব আমার কাছে আছে।” আর প্রত্যেকেরই কথা শুনে বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন বলেন, “12 ই ডিসেম্বর হাইকোর্ট প্রশাসনকে এই সম্পর্কিত প্রাসঙ্গিক আইন ও অন্যান্য নথি পেশ করতে হবে।” এমনকি মামলাটির গ্রহণযোগ্যতা পরে দেখা যাবে বলে এদিন নিয়োগ প্রক্রিয়ায় কোনো স্থগিতাদেশ না দিয়ে তা স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে আদালত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!