এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > শ্মশানঘাটে দাহ কর্মী পদে আবেদন গ্র্যাজুয়েট, পোস্ট গ্র্যাজুয়েটদেরও! ফাঁপরে কতৃপক্ষ

শ্মশানঘাটে দাহ কর্মী পদে আবেদন গ্র্যাজুয়েট, পোস্ট গ্র্যাজুয়েটদেরও! ফাঁপরে কতৃপক্ষ

শ্মশানঘাটের দাহ কর্মী হতে চায় গ্র্যাজুয়েটরা। সম্প্রতি একটি চাকরির আবেদনে সেই গ্র্যাজুয়েটদের আবেদনপত্র দেখে চক্ষু চড়কগাছ বর্ধমান পুরসভা কতৃপক্ষের। সূত্রের খবর, সম্প্রতি বিভিন্ন পদে নিয়োগের পাশাপাশি পুরসভার নির্মল ঝিলের শ্মশানঘাটে একজন দাহকর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করে বর্ধমান পৌরসভা।

আর এরপরেই আশ্চর্য্যজনক ভাবে সেই দাহকর্মী পদে আবেদন করেন 54 জন প্রার্থী। যাদের মধ্যে মাস্টার ডিগ্রি এবং অনার্স গ্র্যাজুয়েটরাও রয়েছেন। আর এইখানেই মহা ফাঁপড়ে পড়েছে পুর কতৃপক্ষ। উচ্চ শিক্ষিতরা যে এইভাবে দাহ কর্মীর পদেও আবেদন করবে তা ভাবতে পারছেন না কেউই।

তাছাড়াও অন্যান্য পদে লিখিত পরীক্ষা হলেও এখানে লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়নি। এখন এই পদে আদৌ লিখিত পরীক্ষা হবে না কি মৌখিক ভাবেই নেওয়া হবে ইন্টারভিউ সে নিয়ে সন্দিহান সকলে।

সূত্রের খবর, এই পরিস্থিতিতে শ্মশানঘাটের দাহ কর্মী পদে নিয়োগ পদ্ধতি ঠিক কী হবে তা নিয়ে আজ একটি বৈঠকে বসছেন ডিএলবির যুগ্ম সচিব, পুরসভার চেয়ারম্যান, পুরসভার নির্বাহী আধিকারিক এবং জেলা প্রশাসনের এক ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

দাহকর্মী পদে গ্র্যাজুয়েট পাশ কর্মীরা আবেদন করায় এবং এই পদে নিয়োগের প্রসঙ্গে এদিন বর্ধমান পুরসভার চেয়ারম্যান স্বরুপ দত্ত বলেন, “আজ পুরসভার সিলেকশন কমিটির বৈঠক রয়েছে, সেখানেই এব্যাপারে আলোচনা হবে। তবে এই দাহকর্মী পদে স্নাতক উত্তীর্ন যুবক যুবতী আবেদন করায় তা সত্যিই আমাদের কাছে লজ্জার বিষয়। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, রাজ্যে এখন কার্যত ঘরে বসা এই গ্র্যাজুয়েট পাশ যুবক যুবতীরা। তাই পেট চালাতে এখন দাহকর্মী হতেও আপত্তি নেই তাঁদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!