এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সরকারি অনুষ্ঠানে বেফাঁস মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন হেভিওয়েট নেতা – জেনে নিন বিস্তারিত

সরকারি অনুষ্ঠানে বেফাঁস মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন হেভিওয়েট নেতা – জেনে নিন বিস্তারিত


সম্প্রতি একের পর এক অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে। যা নিয়ে স্বভাবতই দল অস্বস্তিতে। দলের অন্দরে উঠেছে চাপা গুঞ্জন। এবার আরো একবার দলকে অস্বস্তিতে ফেললেন পুরুলিয়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি তথা জেলা তৃণমূলের প্রথম সারির নেতা সুজয় বন্দোপাধ্যায়।

বুধবার কংসাবতী জলাধারে মাছ ছাড়ার একটি সরকারি অনুষ্ঠানে রীতিমতন বেফাঁস মন্তব্য করে দলকে অস্বস্তিতে ফেলেন বরিষ্ঠ নেতা সুজয় বন্দোপাধ্যায়।

মৎস্যজীবীদের উদ্দেশ্যে সুজয় বাবু এদিন বলেন, “সরকারের সুবিধা নিয়ে সরকার-বিরোধী চিন্তাভাবনা কম রাখবেন।” যথারীতি বিতর্কিত এই বক্তব্য নিয়ে জেলায় শুরু হয় চাপানউতোর।

সরকারি অনুষ্ঠানে গিয়ে সুজয় বাবুর এ ধরনের বিতর্কিত মন্তব্যের প্রতিবাদে বিজেপি জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী জানান, “ওঁর এই মন্তব্যই প্রমাণ করে সরকার দল মিলেমিশে এক হয়ে গিয়েছে। কোনও দল যখন নির্বাচনে যায়, তখন সে রাজনীতির কথা বলে। কিন্তু সরকারে এসে গেলে সেই কথা বলা যায় না। কারণ সরকার সকলের। সরকারি অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে এই ধরনের কথা বলা কাম্য নয়।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে, সুজয় বাবু রীতিমতন দাবি করে জানিয়েছেন, তাঁর বক্তব্যে কোনো ভুল নেই। তিনি জানান, “সরকার পাশে থাকবে, সব দাবি মেটাবে, কিন্তু সেই সরকারেরই বিরোধিতা করবো, এটা হতে পারে না।” তিনি আরো বলেন, “কোনো রাজনৈতিক দলের বিরোধিতা কেউ করতেই পারেন। কিন্তু সরকার যখন ভালো কাজ করবে, তখন সরকারের সমালোচনা কেন হবে।” সাথে তিনি বিজেপি সভাপতি কে তীব্র কটাক্ষ করে জানিয়েছেন, “ওঁর মুখ থেকে এসব কথা শুনবো না। সরকার আর দলকে এক করেছে তো বিজেপিই। তাই এসব কথা বিজেপি নেতাদের মুখে মানায় না।”

এদিনের অনুষ্ঠানে সুজয় বাবু মৎস্যজীবীদের সমবায় গড়ার পরিকল্পনা দিয়েছেন। এবং সমবায় প্রকল্পে মৎস্যজীবীদের প্রয়োজনীয় জিনিস দেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জেলা বিজেপি দল তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। সাথে তৃণমূলের অন্দরেও শুরু হয়েছে কানাঘুষো। এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূল নেতৃত্ব কি পদক্ষেপ নেন সেদিকে তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!