এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > সরকারি জায়গা দখল করে তৃণমূলের পার্টি অফিস, হাইকোর্টের নির্দেশে ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হল

সরকারি জায়গা দখল করে তৃণমূলের পার্টি অফিস, হাইকোর্টের নির্দেশে ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হল

সরকারি জায়গা দখল করে করা হয়েছিল দলীয় কার্যালয় এমনই অভিযোগের ভিত্তিতে
বৃহস্পতিবার দুপুরে হাইকোর্টের নির্দেশে হলদিয়ার মঞ্জুশ্রী মোড়ে সরকারি জায়গা দখল করে তৈরি তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠনের কার্যালয় ভেঙে দেওয়া হয়। শাসকদলের এই কার্যালয়ের উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্ব দেন হলদিয়ার মহকুমা শাসক কুহুক ভূষণ।

এদিন যদিও শাসক দলের তরফে প্রশাসনের কাছে উচ্ছেদ অভিযান স্থগিত রাখার আবেদন জানানো হয়। কিন্তু প্রশাসনের তরফে হাইকোর্টের নির্দেশের কপি ও জায়গার ম্যাপ দেখিয়ে ওই কার্যালয় ভেঙে দেওয়া হয়। এ প্রসঙ্গে মহকুমা শাসক কুহুক ভূষণ বলেন, “মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশে মতো জায়গার ম্যাপ ও স্কেচ অনুযায়ী মঞ্জুশ্রী মোড়ের একটি অবৈধ নির্মাণ উচ্ছেদ করা হয়েছে। ম্যাপের বাইরে কোনও নির্মাণ ভাঙা হয়নি। ”
প্রশাসন সূত্রে খবর, মঞ্জুশ্রী মোড়ে উত্তম কোটাল নামে এক ব্যক্তির জায়গার সামনে সরকারি জায়গার উপর কয়েক বছর আগে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অফিস তৈরি হয়। উত্তম বাবু অভিযোগ করেন,ওই অফিসটি তারঁ রায়ত জায়গায় ঢোকার রাস্তা দখল করে তৈরি করা হয়েছিল ।

কয়েক মাস আগে অবৈধ নির্মাণ উচ্ছেদের দাবি নিয়ে উত্তম বাবু হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলে রাতারাতি ওই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অফিস শাসক দলের টোটো, অটো, ট্রেকার ও ট্যাক্সি ইউনিয়নের কার্যালয়ে পরিণত হয়। সম্প্রতি হাইকোর্ট ওই অবৈধ নির্মাণ ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ দেয়।

আর তার ভিত্তিতেই এদিন মহকুমা শাসকের নেতৃত্বে বিরাট পুলিস বাহিনী অবৈধ নির্মাণ উচ্ছেদ করে। যদিও প্রাথমিকভাবে শাসক দলের কাউন্সিলার ও আইনজীবীরা প্রশাসনের আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলে উচ্ছেদ আটকানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু, প্রশাসনের আধিকারিকরা হাইকোর্টের নির্দেশের কপি দেখিয়ে ওই অফিস ভেঙে দেয়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন উচ্ছেদ আটকাতে যাওয়া হলদিয়ার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলার তথা আইনজীবী বিমল মাজি বলেন, “উচ্ছেদ অভিযান করার আগে আমাদের কোনও সরকারি নোটিস দেওয়া হয়নি। এমনকি হাইকোর্টে এই কেসের পার্টিও আমাদের করা হয়নি। তবে হাইকোর্টের রায়কে আমরা মান্যতা দিয়েছি। আগামী দিনে এই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিট পিটিশন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!