এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কর্মীদের বেতনে স্বচ্ছতা আনতে এবার চুক্তিভিত্তিক এই কর্মীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করতে চলেছে রাজ্য সরকার

কর্মীদের বেতনে স্বচ্ছতা আনতে এবার চুক্তিভিত্তিক এই কর্মীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করতে চলেছে রাজ্য সরকার

Priyo Bandhu Media

রাজ্যের প্রায় 46 টি দপ্তরে তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী হিসেবে প্রায় 3662 জন কাজ করেন। আর এবার এই সমস্ত কর্মীদের পূর্ণাঙ্গ ডেটাবেস তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্যের অর্থ দপ্তর। কিন্তু হঠাৎ এই সমস্ত কর্মীদের জন্য এহেন সিদ্ধান্ত কেন নিচ্ছে রাজ্য? জানা গেছে, সরকারি কর্মীদের মতন এই চুক্তি ভিত্তিক তথ্যপ্রযুক্তি কর্মীদের বেতন যাতে “আইএফএমএস” ব্যবস্থার মাধ্যমে দেওয়া যায় সেইজন্যই রাজ্যের অর্থ দপ্তর তাদের ডেটাবেস তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে।

সূত্রের খবর, 31 শে জানুয়ারির মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি কর্মীদের সমস্ত ডেটা অনলাইনে অর্থ দপ্তর তাদের পোর্টালে সমস্ত দপ্তরকে পাঠানোর জন্য ইতিমধ্যে একটি বিজ্ঞপ্তিও জারি করে দিয়েছে। কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে যে এখনও পর্যন্ত বিভিন্ন দপ্তর থেকে সমস্ত তথ্য জমাই পড়েনি। ফলে সেই ডেটাবেস তৈরির কাজ এখনও আটকে রয়েছে।

এদিকে আগামী মার্চ মাসের প্রথম দিন থেকেই এই তথ্য প্রযুক্তি কর্মীদের বেতন প্রক্রিয়াকে আইএফএমএসের আওতায় আনা হবে বলে অর্থ দপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হলে এখনও পর্যন্ত অনেকের তথ্য অর্থ দপ্তরের পোর্টালে জমা না পড়ায় তাদের ঠিক কি হবে এখন তা নিয়েও প্রবল শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিকে পদ অনুযায়ী ফেব্রুয়ারি মাস থেকে এই তথ্যপ্রযুক্তি কর্মীদের বেতন বৃদ্ধির জন্য একটি বিজ্ঞপ্তিও জারি করে দিয়েছে রাজ্যের অর্থ দপ্তর। একাংশের মতে, এজেন্সির মাধ্যমে নিযুক্ত কর্মীদের কাজের চাপ অনেকটাই বেশি থাকে। অন্যদিকে এই সমস্ত কর্মীদের সরকার যে টাকা পাঠায় তার একটা অংশ কেটে নেওয়া হয় বলেও দীর্ঘদিন ধরে অভিযোগ করে আসছেন কর্মীরা।

কিন্তু আইএফএমএস প্রক্রিয়া চালু হলে অর্থ দপ্তরের পক্ষ থেকে পাঠানো টাকা সরাসরি সেই সমস্ত কর্মীদের ব্যাংক একাউন্টে ঠিক সময়ে পৌঁছে যাবে বলেই মনে করছেন একাংশ। কিন্তু অনেকে আবার এই আশঙ্কাতেও ভুগতে শুরু করেছেন যে, চুক্তিভিত্তিক কর্মীদের অনেকে কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে থাকা কোনো প্রকল্পের কাজ করছেন। ফলে সেই প্রকল্প যদি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে কর্মীরা কি করবেন?

এদিন এই প্রসঙ্গে তৃণমূল প্রভাবিত রাজ্য সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের কোর কমিটির সদস্য পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করা নিয়ে বিভিন্ন অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছে। এই ব্যাপারে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণও করা হয়েছে। রাজ্য সরকার চুক্তিভিত্তিক কর্মীদের কল্যাণের জন্য যে ব্যবস্থা নিয়েছে তাতে একশ্রেণীর আমলা বাধা দিচ্ছে।” সব মিলিয়ে এবার কর্মীদের বেতন ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা আনতে চুক্তিভিত্তিক তথ্যপ্রযুক্তি কর্মীদের জন্য এক আধুনিক উদ্যোগ নিল রাজ্য সরকার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!