এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বাম আমলে আত্মসমর্পণকারী বাম ২১ জন KLO জঙ্গি পেলো সরকারি চাকরি

বাম আমলে আত্মসমর্পণকারী বাম ২১ জন KLO জঙ্গি পেলো সরকারি চাকরি

বাম জামানায় আত্মসমর্পণকারী KLO( কামতাপুর লিবারেশন অর্গানাইজেশন) জঙ্গি সংগঠনের ২১ জন রাজ্যসরকারের তরফ থেকে হোমগার্ড পদে নিযুক্ত হতে চলেছেন। গতকাল আলিপুরদুয়ার জেলা প্রশাসনিক বৈঠকে এমনটাই ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঘোষণা মোতাবেক এদিন উওরকন্যায় ডাকা হয়েছে তাঁদের। এখানেই তাঁদের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দেওয়ার কথা।

তবে এই সরকারি চাকরী পার্থী ২১ জনের লিস্টে জায়গা হয়নি KLO জঙ্গি সংগঠনের প্রথম ব্যাচের প্রশিক্ষিত সদস্য টম অধিকারীর। বিভিন্ন আদালতে একাধিক মামলা চলছে তাঁর বিরুদ্ধে। মাঝে মাঝেই সেই মামলায় হাজিরা দিতে যেতে হয় তাকে,তাই হয়তো এবার চাকরির সুযোগ পেল না টম,এমনটাই আন্দাজ করা হচ্ছে সূত্রের খবর থেকে। উল্লেখ্য,KLO জঙ্গি সংগঠনের মোট ৮ টি ব্যাচে প্রশিক্ষণ হয়েছিলো। এর মধ্যে ১৯৯৮ -এ হয়েছিলো প্রথম প্রশিক্ষণটি। সেই ব্যাচের টারজান ওরফে হিমাদ্রি দাস এবং মিলটন ওরফে মিহির দাস ২১ জনের তালিকাভুক্ত আছে। কিন্তু বাদ পড়ে যায় চতুর্থ ব্যাচের একসময়ের প্রশিক্ষক পদে নিযুক্ত টম অধিকারী। তবে জানা যাচ্ছে যে,জেল থেকে মুক্তি পেয়ে বর্তমানে শান্তিপূর্ণ জীবনযাপন করতে উদ্যোগ নিয়েছে সে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

প্রসঙ্গত,পৃথক রাজ্য কামতাপুর গঠনের দাবীতেই KLO গঠন করা হয়েছিলো। সেই দাবীকে সামনে রেখেই চলছিলে জঙ্গি আন্দোলন। এই আন্দোলনেরই নেতৃত্বে ছিলেন জীবন সিংহ। তাঁর সাংগঠনিক দক্ষতাতেই ভারতের উত্তর পূর্ব সীমান্তে একাধিক জঙ্গিকে জমায়েত করা গেছিলো। ২০০৩ সালে তার ক্রমবর্ধমান গতি দেখেই আশঙ্কায় পড়ে যায় তৎকালীন বঙ্গের বাম সরকার। এর জেরে জঙ্গি আন্দোলনকে দমন করতে কড়া পদক্ষেপ নেয় রাজ্যের বাম সরকার এবং ভুটান সরকার। একদিকে ভুটান সরকার যেমন জঙ্গি সংগঠনের বিরুদ্ধে ফ্ল্যাশ আউট অপরেশান শুরু করে তেমনি বাম তরফের মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের নির্দেশ জারি হয় শুটআউট অপারেশন। দুই সরকারের সাঁড়াশী আক্রমণের জেরে জঙ্গি সংগঠনের বেশীরভাগ সদস্যই আত্মসমর্পণ করেন। ধরা দেওয়া জঙ্গীরা এরপর থেকে হাজতবাসই করছিলেন।

কিন্তু ২০১১ সালের ১৩ ই মে রাজ্যের ক্ষমতায় তৃণমূল সরকার এলে ধৃত জঙ্গীরা মুক্তি আবেদন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। সমাজের মূল স্রোতে ফেরার ইচ্ছের কথা জাহির করেন। এঁদের আবেদনে সাড়া দিয়েই রাজ্যসরকারের তৎপরতায় মুক্তি পায় ৪৭ জন জঙ্গী। এদের মধ্যে ২১ জনকেই নির্বাচন করা হয়েছে সরকারি চাকরির জন্যে। তবে জানা যাচ্ছে, এখনো হদিশ পাওয়া যায়নি KLO -র নেতা জীবন সিংহের। পুলিশ থেকে গোয়েন্দা বিভাগের কর্তাদের কাছেও তাঁর কোনো তথ্য এখনো পাওয়া যায়নি।

Top
error: Content is protected !!